বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান

প্রকাশিত: ০৬-১২-২০২২ ০১:৩৩

আপডেট: ০৬-১২-২০২২ ১০:২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘উন্নয়নশীল দেশ থেকে সাবলীলভাবে উন্নত দেশে পরিণত করতে স্নাতক অর্জনে আমাদেরকে কাজ করে যেতে হবে। যাতে দেশ ও দেশের জনগণের কল্যাণ নিশ্চিত করা যায়।’ প্রধানমন্ত্রী আজ সোমবার তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে উন্নয়নশীল দেশ থেকে উন্নত দেশে পরিণত করতে স্নাতক অর্জন সংক্রান্ত জাতীয় কমিটির প্রতিবেদন প্রদান ও উপস্থাপনকালে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, তাঁর সরকার ইতোমধ্যে উন্নয়নশীল দেশ থেকে উন্নত দেশে পরিণত করতে স্নাতক অর্জনে লক্ষ্য ও চ্যালেঞ্জগুলো চিহ্নিত করেছে এবং কীভাবে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠন করা যায়, সে লক্ষে চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলায় কাজ শুরু করেছে। 

বাংলাদেশ যাতে সাবলীলভাবে স্নাতক অর্জন করতে পারে সে লক্ষে সরকার কার্যকর পদক্ষেপ নিতে একটি কমিটি ও কিছু সাব-কমিটি গঠন করা হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা রক্ষা করে এবং সকল বাধা পেরিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ জোরদারের মাধ্যমে কীভাবে উন্নত দেশের কাতারে পৌঁছানো যায় তা নিয়ে ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ বিনিয়োগ, বাণিজ্য এবং ব্যবসা ক্ষেত্রে লাভবান হবে এবং এসব  খাতে আমাদের দ্রুত অগ্রগতি হবে। উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আন্তর্জাতিকভাবে আমাদের সম্মান ও মর্যাদাবৃদ্ধি পাবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের অগ্রগতি নিশ্চিত করতে সবাইকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ কার্যকরভাবে উন্নয়নশীল দেশের ভূমিকা  পালন করে ২০৪১ সালের মধ্যে অবশ্যই উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার ভিশন-২০৪১ এর সাথে সঙ্গতি রেখে উন্নত দেশে পরিণত করতে বর্তমানে প্রেক্ষিত পরিকল্পনা-২০২১-২০৪১ বাস্তবায়ন করছে।

তিনি বলেন, তাঁর সরকার এর আগে রুপকল্প-২০২১ সফলভাবে বাস্তবায়ন করায় দেশ উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ভবিষ্যতে নিরবচ্ছিন্ন উন্নয়ন নিশ্চিত করতে সরকার ডেল্টা প্লান-২১০০ বাস্তবায়ন করছে। 

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনার মাধ্যমে সমৃদ্ধির পথে এগিযে যাচ্ছে। এই দেশকে আর কখনো পেছনে ফিরে তাকাতে হবে না।

দীর্ঘ ২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সময়োপযোগী পদক্ষেপ নিয়েছে। 

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসতে না পারায় দেশ আবারও অন্ধকার, দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদে ফিরে যায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর তাঁর সরকার দেশবাসীকে সুন্দর ও উন্নত জীবন দিতে বেশ কিছু কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে স্বাধীনতার ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হতে পারতো।

তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের বেশিরভাগ সদস্যদের নৃশংসভাবে হত্যা করার পর বাংলাদেশের জনগণের ভাগ্যের উন্নতি হয়নি।

Mustafiz/Bodiar