‘ঢাকায় সমাবেশ বানচালের চেষ্টা করছে সরকার’

প্রকাশিত: ০৫-১২-২০২২ ১৯:৩০

আপডেট: ০৫-১২-২০২২ ২১:১৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকায় বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ বানচাল করতে সরকার সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি করছে বলে অভিযোগ দলটির সিনিয়র নেতাদের। তবে যে কোনো মূল্যে গণসমাবেশ সফল করার ঘোষণা দেন তারা। এদিকে, ১০ই ডিসেম্বরে সমাবেশের স্থান হিসেবে নয়াপল্টন থেকে সরে এসে আরামবাগকে টার্গেট করে প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি। দলের কেন্দ্রীয় নেতারা এ ধরনের ইঙ্গিত দিলেও এখনও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি। 

ঢাকার বিভাগীয় সমাবেশের সার্বিক বিষয় তুলে ধরতে আজ (সোমবার) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপি।

এতে অভিযোগ করা হয়, সমাবেশকে ঘিরে নিজেরা সন্ত্রাস করে ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি করছে সরকার। বিএনপি'র প্রচারণায় হামলা চালানো ও নেতাকর্মীদের গ্রেফতার অব্যাহত রাখায় ক্ষোভ জানান দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

এতদিন নয়াপল্টনে সমাবেশ করার ব্যাপারে অনড় থাকলেও সেখান থেকে কিছুটা সরে আসার ইঙ্গিত দিয়েছে বিএনপি। আরামবাগকেও সমাবেশের স্থান হিসেবে বিবেচনায় নিয়েছে দলটি। তবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ না করার কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন মির্জা আব্বাস।

গণসমাবেশকে সামনে রেখে বিএনপির সিনিয়র নেতারা আজ (সোমবার) বিকেলে দলের চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে পেশাজীবী পরিষদের নেতাদের সাথে বৈঠক করেন। এসময় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিএনপির পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। গণতন্ত্র রক্ষায় ১০ই ডিসেম্বর ঢাকার সমাবেশ সফল করার আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে, বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে আজ (সোমবার) রাজধানীর বেইলি রোডে লিফলেট বিতরণ করা হয়। মানুষের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ১০ই ডিসেম্বর সমাবেশের পর নতুন কর্মসূচি নিয়ে মাঠে থাকার কথা জানান বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

GM/sat