ইউক্রেনের ৬০ শতাংশ ভবন বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন

প্রকাশিত: ২৫-১১-২০২২ ২০:১৪

আপডেট: ২৫-১১-২০২২ ২০:১৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইউক্রেনের বিদ্যুৎ অবকাঠামো লক্ষ্য করে নতুন করে হামলা চালাচ্ছে রাশিয়া। চলমান এই হামলায় ইউক্রেনের ৬০ শতাংশ আবাসিক ভবন বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। তীব্র আকার ধারণ করেছে দেশটির জ্বালানী ও পানি সংকট। 

রাজধানী কিয়েভসহ দেশটির ১৫টিরও বেশি অঞ্চলে বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ নিয়ে সবচেয়ে কঠিন পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। 

এদিকে, ইউক্রেনের কাক্সিক্ষত সাফল্য অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত সহায়তা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ব্রিটেন। অন্যদিকে, কিয়েভে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র পাঠানোর প্রস্তাবটি প্রত্যাখান করেছে জার্মানি।

ইউক্রেনে রুশ সামরিক হামলার নয়মাস পেরিয়ে গেলেও থামছে না আক্রমণ। দেশটির বিদ্যুৎ অবকাঠামো লক্ষ্য করে হামলা অব্যাহত রেখেছে রাশিয়া। চলমান হামলায় কার্যত ধ্বংস হয়ে গেছে ইউক্রেনের অর্ধেকের বেশি বৈদ্যুতিক অবকাঠামো। বুধবারের হামলার পর গত ৪০ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিলো পুরো ইউক্রেন। 

এ অবস্থায় ইউক্রেনজুড়ে দেখা দিয়েছে তীব্র পানি ও বিদ্যুৎ সংকট। তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে নেমে যাওয়ায় শীতে ভোগান্তিতে পড়েছে লাখো মানুষ, বাড়ছে হাইপোথার্মিয়াজনিত মৃত্যুর আশংকা। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা খেরসন অঞ্চলের। ভোগান্তি কমাতে এলাকাটি থেকে নাগরিকদের সরিয়ে নেয়া শুরু করেছে প্রশাসন। এ বছরের শীতে দেশটির প্রায় ৩০ লাখ মানুষ তীব্র কষ্ট পাবে বলে সতর্ক করেছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা। তবে, পর্যাপ্ত পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে বিদ্যুৎ ক্ষেত্রগুলোর অবকাঠামো মেরামতে কাজ করছে কর্তৃপক্ষ।  

এদিকে, ইউক্রেনে রুশ হামলার জেরে মস্কোর ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা আনার প্রস্তুতি নিচ্ছে ইউরোপিয় ইউনিয়ন। বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে মস্কোর বর্বর হামলা প্রতিহত করতে ইউক্রেনকে সব ধরনের সহায়তা দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন ইউ প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভরডার লিয়েন। এছাড়া, ইউক্রেনের প্রতি পুর্নসমর্থন ব্যক্ত করেছে যুক্তরাজ্য। 

অন্যদিকে, ইউক্রেনের জন্য প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র সহায়তা চেয়ে পোল্যান্ডের প্রস্তাবে অসম্মতি জানিয়েছে জার্মানি। এই বিশেষ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা শুধু পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্যভুক্ত এলাকায় ব্যবহারের জন্য প্রযোজ্য বলে জানিয়েছে বার্লিন। 

 

shamima/Bodiar