দেশে সংকটের জন্য আ. লীগ দায়ী, কুমিল্লায় সমাবেশে বিএনপি

প্রকাশিত: ২৫-১১-২০২২ ১২:১৮

আপডেট: ২৬-১১-২০২২ ২১:৪৩

কুমিল্লা সংবাদদাতা: কুমিল্লায় বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ শুরু হয়েছে। আজ শনিবার (২৬শে নভেম্বর) বেলা ১১টায় কুমিল্লা টাউন হল মাঠে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্যদিয়ে বিএনপির এই গণসমাবেশ শুরু হয়। বেলা ১১টার পর থেকেই স্থানীয় নেতারা সমাবেশে বক্তব্য দেয়া শুরু করলেও কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য দেবেন দুপুর ২টার পর থেকে।

জানা গেছে, নির্ধারিত সময়ের কয়েক ঘণ্টা আগেই কুমিল্লার টাউন হল মাঠ পরিপূর্ণ হয়ে গেছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের স্লোগানে মুখরিত সমাবেশস্থল। ইতিমধ্যে কুমিল্লায় এসে পৌঁছেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাসসহ কেন্দ্রীয় নেতারা।

এদিকে সমাবেশকে কেন্দ্র করে কয়েকদিন আগে থেকেই টাউনহল মাঠে আসতে শুরু করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। বাকিরা শনিবার ভোর থেকেই মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে আসতে শুরু করেন। মাঠে জায়গা না পেয়ে সড়কেও অবস্থান নিয়েছেন অনেকে। এ ছাড়া মানুষের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় সকালেই নতুন করে কোনো মিছিল টাউন হল মাঠে প্রবেশ করতে পারছেন না। উপস্থিত নেতাকর্মীরা যার যার অবস্থানে থেকেই স্লোগান দিচ্ছেন। কান্দিরপাড় পূবালী চত্বর, লিবার্টি মোড়, রামঘাটলায় অবস্থান নিচ্ছেন নেতাকর্মীরা।

গণসমাবেশ উপলক্ষে টাউন হল এলাকায় ব্যানার, ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড, পোস্টারে সয়লাব হয়ে গেছে। যে যার মতো ব্যানার, ফেস্টুন লাগিয়েছেন। দোকানপাট, ভবন ব্যানারে ছেয়ে গেছে। শনিবার সকালে কুমিল্লা টমসম ব্রিজ থেকে সমাবেশস্থল টাউন হল মাঠ পর্যন্ত ২ কিলোমিটার লম্বা এক মিছিল দেখা গেছে। মিছিলে কুমিল্লার দক্ষিণ জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

এদিকে কুমিল্লার গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে নগরের কান্দিরপাড়ে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। টাউন হল মাঠ ছোট হওয়ার কারণে সড়কে লোকের সংখ্যা মাঠের চেয়ে বেশি। মাইক লাগানো হয়েছে সমাবেশস্থল থেকে বহু দূরের সড়কেও।

দলীয় নেতাকর্মীরা বলছে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন, নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনাসহ বেশকিছু দাবিতে সিরিজ সমাবেশ করছে বিএনপি। 

এর আগে গত ১২ই অক্টোবর চট্টগ্রামে প্রথম গণসমাবেশ হয়। পরে ময়মনসিংহ, খুলনা, রংপুর, বরিশাল, ফরিদপুর ও সিলেটে সমাবেশ হয়। আগামী তেসরা ডিসেম্বর রাজশাহী ও ঢাকায় ১০ই ডিসেম্বর গণসমাবেশ হবে।

FR/sharif