চাঁপাইনবাবগঞ্জের দু'টি ইউনিয়নে পদ্মার ভাঙ্গন

প্রকাশিত: ০৫-১০-২০২২ ০৮:৩৪

আপডেট: ০৫-১০-২০২২ ০৮:৫৪

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সংবাদদাতা: চাঁপাইনবাবগঞ্জে পদ্মা নদীতে ভাঙ্গন বেড়েছে। এরইমধ্যে নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে দুটি ইউনিয়নের শতাধিক বসতবাড়ি ও ফসলি জমি। হুমকির মুখে পড়েছে, নারায়ণপুর ও পাকা ইউনিয়নের সরকারি-বেসরকারি ভবন। আতঙ্কে অন্যত্র আশ্রয় নিচ্ছেন অনেকে। ভাঙ্গন ঠেকাতে অস্থায়ী ভিত্তিতে কাজ শুরু করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।  

নদী ভাঙ্গনের এ চিত্র চাঁপাইনবাবগঞ্জের দূর্গম চরাঞ্চল নারায়নপুর ও পাঁকা ইউনিয়নে। এরই মধ্যে বিলিন হয়েছে ইউনিয়ন দুটি’র শতাধিক বসতবাড়ি, বিপুল পরিমান ফসলি জমি, বাগান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন স্থাপনা। নদীর পানি কমতে শুরু করায় ভাঙ্গন তীব্র হয়েছে তীরবর্তী প্রায় পাঁচ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে। 

ভাঙ্গনের হুমকিতে রয়েছে আড়াইশ’ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত পাওয়ার প্ল্যান্টসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সীমান্ত ফাঁড়ি, মসজিদ, মাদ্রাসা, ক্লিনিক, ইউনিয়ন পরিষদ ভবনসহ বিস্তির্ণ ফসলি জমি। স্থানীয়রা জানালেন, কয়েক বছর ধরে এসব এলাকায় ভাঙ্গন দেখা দিলেও প্রতিরোধে তেমন কোনো ব্যবস্থাই নেয়া হয়নি। 

আর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মোখলেসুর রহমান জানালেন, স্থায়ী বাঁধ ছাড়া এই ভাঙ্গন প্রতিরোধ সম্ভব নয়, তবে, তীব্রতা কমাতে জিও টিউব ও জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। ভাঙন রোধে স্থায়ী সমাধান বের করতে একটি কারিগরি কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানালেন জেলা প্রশাসক একে এম গালিভ খান।

এই দুই ইউনিয়নে প্রায়  ৬০ হাজার মানুষের বাস। ২০১৮ সাল থেকে ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। 

MBK/sharif