খেরসনের দুই এলাকা পুনরুদ্ধারের দাবি ইউক্রেনের

প্রকাশিত: ০৩-১০-২০২২ ১৪:৩৬

আপডেট: ০৩-১০-২০২২ ১৪:৩৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: লিমান শহরের পর এবার ইউক্রেনের রুশ অধিকৃত খেরসন অঞ্চলের দুটি এলাকা পুনরুদ্ধারের দাবি করেছে কিয়েভ। রাশিয়ার দখলকৃত সব এলাকা উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। এদিকে, ইউক্রেনের চার অঞ্চলকে রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করার ডিক্রিতে বৈধতা দিয়েছে দেশটির সাংবিধানিক আদালত। তবে, এ ঘটনায় হতাশা প্রকাশ করেছেন খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। যুদ্ধ বন্ধ করতে রাশিয়ার প্রতি আহ্বান জানান তিনি। 

আমেরিকা ও ইউরোপের দেশগুলোর আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে রাশিয়ার বিরুদ্ধে ভালো প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে ইউক্রেনের সৈন্যরা। লিমান শহর পুনর্দখলের পর খেরসন অঞ্চলের আরও দুটি এলাকা পুনরুদ্ধারের দাবি করেছে কিয়েভ। রোববার রাতে নিয়মিত বিবৃতিতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জানান, খেরসনের আরখানহেলস্কে ও মাইরোলিউবিভকা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছেন তাদের সেনাবাহিনী। রাশিয়ার দখলকৃত এলাকা উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেন তিনি। 

এদিকে, শুক্রবার ইউক্রেনের দোনেৎস্ক, খেরসন, লুহানস্ক ও জাপোরিঝঝিয়া অঞ্চলকে সংযুক্ত করে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের স্বাক্ষর করা ডিক্রিকে বৈধ বলে স্বীকৃতি দিয়েছেন দেশটির সাংবিধানিক আদালত। এখন দেশটির আইনসভায় অনুমোদনের অপেক্ষা। 

ইউক্রেইনের চার অঞ্চলকে রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করে নেয়ায় হতাশা জানিয়েছেন খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। তিনি বলেন, মস্কোর এই পদক্ষেপ পারমাণবিক সংঘাতের ঝুঁকি সৃষ্টি করেছে। এজন্য ইউক্রেনে ‘সহিংসতা ও মৃত্যুর চক্র’ বন্ধ করতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে আহ্বান জানান পোপ ফ্রান্সিস। 

 

SAI/sat