এসএসসি পরীক্ষার্থীর শ্রুতি লেখক অনার্সের শিক্ষার্থী !

প্রকাশিত: ২৮-০৯-২০২২ ০০:১৬

আপডেট: ২৮-০৯-২০২২ ০০:১৬

পটুয়াখালী সংবাদদাতা: পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর শ্রুতি লেখক হিসেবে পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ধরা খেলেন স্নাতক প্রথমবর্ষের ছাত্রী মারুফা আক্তার। 

দশমিনার ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওই পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার এবং দুই বছরের জন্য পরীক্ষার অযোগ্য ঘোষণার সুপারিশ করেন।

এছাড়া মারুফা আক্তারকে অর্থদণ্ড এবং দশমিনা সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব সালাউদ্দিন সৈকতকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি ও তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৭শে সেপ্টেম্বর) দুপুরে দশমিনা মডেল মাধ্যমিক সরকারি বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

ইউএনও মো. মহিউদ্দিন আল হেলাল বলেন, পরীক্ষার্থীর শ্রুতি লেখক হিসেবে বোর্ড থেকে যে অনুমতিপত্র দেওয়া হয়েছে তাতে মারুফা আক্তারকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। মারুফাকে দশমিনা সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী দাবি করা হয়েছে। যেখানে তার রোল নম্বর ২১৫ বলা হলেও প্রকৃতপক্ষে ওই নামে এবং রোলে কোনো ছাত্রী নেই।

মারুফা আক্তার ২০২২ সালে আলীপুর কলেজ থেকে এইচএসসি সম্পন্ন করেন। বর্তমানে বরিশাল বিএম কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের স্নাতক প্রথমবর্ষের ছাত্রী।  

শ্রুতি লেখক মারুফা আক্তার দাবি করেন, তাকে ব্ল্যাকমেইল এবং ভয় দেখিয়ে এই কাজে বাধ্য করা হয়। এ কারণে মারুফা আক্তারকেও ভ্রাম্যমাণ আদালতে অর্থদণ্ড করা হয়।

 

AR/habib