খেলাপি ঋণ সবচে বেশি সরকারি ব্যাংকে

প্রকাশিত: ২৫-০৯-২০২২ ১৪:২২

আপডেট: ২৫-০৯-২০২২ ১৪:২২

তানজিলা নিঝুম: করোনা অতিমারি ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে ঋণ পরিশোধে বড় ছাড় দেয়ার পরও গত জুন পর্যন্ত খেলাপি ঋণ বেড়ে সোয়া লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। যা বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি। খেলাপী ঋণ পরিশোধে বাংলাদেশ ব্যাংকের নেয়া উদ্যোগের সুফল চলতি বছর শেষে পাওয়া যাবে বলে মনে করেন ব্যাংকটির মুখপাত্র। খেলাপি ঋণ পরিশোধ ও ঋণ বিতরণে সতর্ক হতে ব্যাংকিং খাতে অস্থায়ী কমিশন গঠন করার পরামর্শ দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা। 

২০২১ সালের ডিসেম্বরে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো খেলাপি ঋণ ছিল ১ লাখ ৩ হাজার কোটি টাকা। গত জুনে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকার বেশি। গত ছয় মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ২২ হাজার কোটি টাকা। ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত খেলাপি ঋণ বেড়েছিল ১০ হাজার ১৬৭ কোটি টাকা। মার্চ থেকে জুন পর্যন্ত বেড়েছে আরও ১১ হাজার ৮১৮ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে খেলাপি ঋণ ছিল ৯৯ হাজার ২০৫ কোটি টাকা। 

এর মধ্যে রাষ্ট্রয়াত্ব ছয়টি ব্যাংকে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৫৫ হাজার ৪২ কোটি টাকা। আর বিশেষায়িত তিনটি ব্যাংকে ৪ হাজার ১৯৪ কোটি টাকা।

খেলাপি ঋণ পরিশোধের নীতিমালায় গত জুন মাসে ঋণের কিস্তির আকার ও পরিশোধের মেয়াদ বাড়ানোসহ বড় ধরনের ছাড় দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে এই ছাড়ের সুফল পাওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন সিপিডির সম্মানীয় ফেলো মুস্তাফিজুর রহমান। দুর্বলতা কাটাতে আর্থিক খাতের সংস্কারের উপর জোর দিয়েছেন তিনি। 

খেলাপী ঋণ পরিশোধে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন নীতিমালার ফলে ভালো গ্রাহকরা নিরুৎসাহিত হবে বলেও মত অর্থনীতিবিদদের।

খেলাপী ঋণের চিত্র

২০২১

মাস               খেলাপী ঋণ পরিমাণ

জুন           ৯৯ হাজার ২০৫ কোটি টাকা 

ডিসেম্বর       ১ লাখ ৩ হাজার কোটি টাকা 

২০২২      

মাস                  খেলাপী ঋণ পরিমাণ

মার্চ          ১ লাখ ১৩ হাজার ৪৪০ কোটি টাকা

 

Nijhum/sanchita