সোনা ব্যবসায়ীর টাকা লুট, গ্রেফতার ৫

প্রকাশিত: ২২-০৯-২০২২ ২১:৫২

আপডেট: ২২-০৯-২০২২ ২২:০৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর নিউমার্কেটের এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী থেকে ২০ লক্ষ টাকা ডাকাতির ঘটনায় মূল হোতাসহ ৫ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগ। রমনা বিভাগের জোনাল টিম বুধবার (২১শে সেপ্টেম্বর) রাজধানীর উত্তরা, কলাবাগান ও নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করেছে।

বৃহস্পতিবার (২২শে সেপ্টেম্বর) ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হারুন অর রশিদ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- গোলাম মোস্তফা শাহীন ওরফে শাহীন পুলিশ, মো. শাহাদৎ হোসেন, সাইদ মনির আল মাহমুদ, মো. রুবেল ইসলাম, মো. জাকির হোসেন। তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত একটি প্রাডো জিপ গাড়ি, ছিনতাইকৃত নগদ এক লাখ ১০ হাজার টাকা, একটি ওয়াকিটকি, এক জোড়া হ্যান্ডকাপ, ২টি কালো রঙয়ের কটি, একটি স্টিলের লাঠি, একটি হাতুড়ি উদ্ধার করা হয়।

হারুন অর রশিদ বলেন, ‘গ্রেফতারকৃতরা ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ডাকাতি-ছিনতাই করতো। ডাকাতি করা তাদের  পেশা। গ্রেফতারকৃতরা ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার কথা প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছে। 

তিনি জানান, গত তেসরা সেপ্টেম্বর নিউমার্কেটের একজন স্বর্ণ ব্যবসায়ী মহিউদ্দিন খান তাঁতিবাজার থেকে ২০ লাখ টাকা নিয়ে পাঠাও মোটরসাইকেলে করে নিউমার্কেটের উদ্দেশে রওনা হন। পথে ২ জন ডাকাত মোটরসাইকেলে করে ওই ব্যবসায়ীকে অনুসরণ করে। ভিকটিম বিকাল ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবের মূল প্রবেশ গেটের সামনে আসামাত্র ডাকাতরা একটি জিপগাড়ি দিয়ে ভিকটিমের মোটরসাইকেল বেরিকেড দেয়। গাড়ির ভেতর থেকে ৩ জন ডাকাত নেমে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে মোটরসাইকেল থেকে ভিকটিমকে জাপটে ধরে গাড়িতে তুলে নেয়। গাড়ির ভেতরে ভিকটিমকে গামছা দিয়ে চোখ বেঁধে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে চোখে-মুখে আঘাত করে।

অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার জানান, ডাকাতরা ভিকটিমের সঙ্গে থাকা নগদ ২০ লাখ টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। পরে ডাকাতরা ভিকটিমের হাত, পা, চোখ বাঁধা অবস্থায় ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ের পাশে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার আব্দুল­াপুরে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়। ভিকটিমের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ডিএমপির শাহবাগ থানায় মামলা হয়।

 

Akash/shimul