উজার হচ্ছে বন, পাহাড়ীরা হারাচ্ছে মাচাং ঘর

প্রকাশিত: ১২-০৯-২০২২ ০৮:৩৫

আপডেট: ১২-০৯-২০২২ ০৯:০৩

বান্দরবান সংবাদদাতা: মাচাং ঘর, পাহাড়ে প্রতিটি সম্প্রদায়ের মানুষের ঐতিহ্যের ঠিকানা। তবে আধুনিকতার ছোঁয়া ও বন উজারের কারণে এই ঘরের সংখ্যা দিন দিন কমে আসছে। পাহাড়িদের ঐতিহ্যবাহী মাচাং ঘর টিকিয়ে রাখতে বনজ সম্পদ সংরক্ষণের পাশাপাশি স্থানীয়দের এই ঘর ব্যবহারে উৎসাহিত করার তাগিদ দিলেন সংশ্লিষ্টরা।

বাঁশ কাঠ ও ছন দিয়ে বিশেষ পদ্ধতিতে তৈরী এই ঐতিহ্যবাহী মাচাং ঘর। পাহাড়ে বসবাসকারী প্রতিটি সম্প্রদায়ের মানুষের জীবনের সাথে জড়িয়ে আছে এই ঘর। ঘরগুলো দেখতে যেমন সুন্দর তেমনি আকর্ষনীয় এবং আরামদায়ক। কিন্তু কালের বিবর্তনে বন উজার, বাঁশসহ বিভিন্ন উপকরণ কমে যাওয়ায় মাচাং ঘরের প্রচলন কমে যাচ্ছে।

মাচাং ভূমি থেকে উচুঁতে খুটির উপর নির্মিত হওয়ায় পোকা মাকড় ও বন্যপ্রাণীর আক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। বর্তমানে পাহাড়ী এলাকায় কিছু কিছু মাচাং ঘর দেখা গেলেও বেশীরভাগ পাড়াতেই গড়ে উঠেছে আধা পাকা ঘর।

পাহাড়ের বনজ সম্পদ সংরক্ষণ করা গেলে মাচাং ঘর টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে বলে মনে করেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য সিং ইয়ং ¤্রাে।

মাচাং ঘর সংরক্ষণ করা গেলে পাহাড়ের ঐতিহ্য যেমন সংরক্ষণ হবে তেমনি বিদেশী পর্যটক আকর্ষনেও ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

 

kanij/sanchita