'৫ পয়সা ভাড়া কমিয়ে যাত্রীদের সাথে প্রতারণা'

প্রকাশিত: ০২-০৯-২০২২ ১৪:১১

আপডেট: ০২-০৯-২০২২ ১৬:৫৩

মাবুদ আজমী: রাজধানীর গণপরিবহনে এখনো চলছে বাড়তি ভাড়া আদায়, ওয়েবিল সিস্টেম ও যত্রতত্র যাত্রী তোলা। এতে প্রতিনিয়ত হয়রানির শিকার হচ্ছে যাত্রীরা। যাত্রীদের অভিযোগ পাঁচ পয়সা ভাড়া কমিয়ে তাদের সাথে প্রতারণা করা হয়েছে। এদিকে, বাসে বাড়তি ভাড়া আদায় ও অনিয়ম বন্ধে ঢাকার বিভিন্ন স্পটে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছে বিআরটিএ। এসময় অর্থদণ্ডের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি বাস ডাম্পিং করা হয়েছে।

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার পর ভাড়া নৈরাজ্য বেড়েছে রাজধানীর গণপরিবহনে। অনেকটা বাধ্য হয়ে অসহায় সাধারণ মানুষকে গুণতে হচ্ছে বাড়তি ভাড়া। সেই সাথে রয়েছে বিচিত্র রকমের হয়রানিও। যাত্রীদের অভিযোগ, পাঁচ পয়সা ভাড়া কমানো কোন কাজে আসেনি সাধারণ মানুষের। পরিবহন শ্রমিকরা ইচ্ছেমত বাড়তি ভাড়া আদায় করছে। সরকার নির্ধারিত তালিকা অনুযায়ী ভাড়া নেয়ার কথা থাকলেও ওয়েবিলের কথা বলে বেশি টাকা আদায় করা হচ্ছে। 

এসব অনিয়ম বন্ধে ও গণপরিবহণে শৃঙ্খলা ফেরাতে শুক্রবার ছুটির দিনেও রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় বিআরটিএ’র ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, রুট পারমিট ও ফিটনেস না থাকা, ভাড়ার তালিকা না টানানোসহ বিভিন্ন অপরাধে জরিমানা করা হয়। সরকারি নিয়ম না মানলে সড়কে গাড়ি চলতে দেয়া হবে না বলেও জানান বিআরটিএ’র পরিচালক মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ। যাত্রীদের জিম্মি করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

Azmi/sharif