উচ্ছেদ আতঙ্কে মৌলভীবাজারের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী

প্রকাশিত: ০৯-০৮-২০২২ ০৯:০৭

আপডেট: ০৯-০৮-২০২২ ১১:৩৩

মৌলভীবাজার সংবাদদাতা: মৌলভীবাজারে বসবাসরত বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ১০ হাজার সদস্যের নেই কোনো নিজস্ব ভূমি। অন্যের পাহাড়ি জমি লিজ নিয়ে তারা বসবাস ও জীবিকা নির্বাহ করে আসছে যুগের পর যুগ। উচ্ছেদ আতঙ্কে কাটে জীবন। এমনকি মৌলিক চাহিদাও পূরণ হয়না তাদের সকলের।

সরকারি হিসেবে মৌলভীবাজার জেলার ৬টি উপজেলায় ছোট-বড় মিলে শতাধিক পাহাড়ী পুঞ্জিতে খাসিয়া ও গারো সম্প্রদায়ের প্রায় দশ হাজার সদস্য বসবাস করেন। তাদের জীবন ও জীবিকার অন্যতম প্রধান উৎস পান চাষ।

বংশ পরম্পরায় যুগ যুগ ধরে পাহাড়ি জমিতে বসবাস ও পান চাষ করলেও তাদের নেই কোন নিজস্ব জমি। অন্যের জমি লিজ নিয়ে পান চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করতে হয়। শিক্ষা ও চিকিৎসার মতো মৌলিক চাহিদা পূরণেও পিছিয়ে তারা। 

খাসিয়া ও গারো সম্প্রদায়ের সদস্যরা বলছেন, সাংবিধানিক স্বীকৃতি না থাকায় তাদেরকে নানা হয়রানির শিকার হতে হয়। রয়েছে বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ এবং হত্যা ও নির্যাতনের অভিযোগ। 

স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুস শহীদ জানান, এসব ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠির মানুষের জীবনমান উন্নয়নে আর্থিক অনুদান ও প্রযুক্তিগত সহযোগিতা দিচ্ছে সরকার।

সমস্যার সমাধান করলে ও সহযোগিতা বাড়ালে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখার ব্যাপারে আশাবাদী সুবিধাবঞ্চিত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সদস্যরা। 

 

AR/prabir