নড়াইলে শিক্ষককে লাঞ্ছনা; ৪ আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ

প্রকাশিত: ০৩-০৭-২০২২ ১৫:৪৪

আপডেট: ০৩-০৭-২০২২ ১৫:৪৪

নড়াইল সংবাদদাতা: নড়াইল সদর উপজেলার মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে লাঞ্ছনার ঘটনায় ৪ জনকে তিনদিন করে জিজ্ঞাসাবাদে পাঠিয়েছে আদালত। আজ (রোববার) নড়াইল জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২ এর বিচারক আমাতুল মোর্শেদা তাদের এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আসামিরা হলেন- রহমতউল্লাহ বিশ্বাস রনি, শাওন খান, স্থানীয় মাদরাসা শিক্ষক মনিরুল ইসলাম এবং অটোচালক রিমন আলী (২২)। 

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মাহামুদুর রহমান, মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার মূল রহস্য উদ্ঘাটনের জন্য অভিযুক্ত চারজনের পাঁচদিন করে রিমান্ড আবেদন করেন। পরে আদালত তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে লাঞ্ছনার ঘটনায় ১৭০/১৮০ জনকে আসামি করে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করে।

এদিকে এ ঘটনায় দায়িত্ব অবহেলার দায়ে নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শওকত কবীরকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। শনিবার রাতে প্রত্যাহার করে খুলনায় রেঞ্জ রিজার্ভ ফোর্সে সংযুক্ত করা হয়। রোববার (৩রা জুলাই) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায় পিপিএম (বার)। তিনি বলেন, ‘ওসি শওকত কবিরকে নড়াইল সদর থানা থেকে প্রত্যাহার করে খুলনায় সংযুক্ত করা হয়েছে। ’

প্রসঙ্গত, গত ১৮ জুন নড়াইল সদরের মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র রাহুল দেব ভারতের বিতর্কিত রাজনৈতিক নেতা নুপুর সাহাকে সমর্থন করে ফেসবুকে পোস্ট দেন। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতা শিক্ষকদের তিনটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসসহ অভিযুক্ত ছাত্রকে জুতার মালা পরানো হয়।

MBK/sharif