স্বপ্নের সেতু পার হয়ে উচ্ছ্বসিত তারা

প্রকাশিত: ২৬-০৬-২০২২ ০৯:৩৭

আপডেট: ২৬-০৬-২০২২ ১৫:৩৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: সেতুর ওপর দিয়ে এক নিমেষেই পদ্মা পার, এমনটা যেন বিশ্বাস হচ্ছে না যাত্রী কিংবা চালকদের। গতকাল সেতু উদ্বোধন হলেও আজ থেকে জনসাধারণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। সাধারণ যাত্রী তো আছেই, পদ্মা সেতু দেখতে দূরদূরান্তের জেলার নাগরিকরাও আসছেন। বাস ও প্রাইভেট কারের পাশাপাশি ভাড়া করা বাইকেও চলছে সেতু পারাপার। 

পদ্মা সেতু আর স্বপ্ন নয়, এখন বাস্তবতা। দক্ষিণাঞ্চলের সাথে সারাদেশ সরাসরি সড়কে যুক্ত হলো। তাই বাধভাঙ্গা উচ্ছ্বাস পদ্মা পাড়ের মানুষের মধ্যে। পদ্মা সেতু দেশের বিস্ময়কর এক স্থাপনা। শতবাধা অতিক্রম করে এই সেতু নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত বৃহৎ এই অবকাঠামো দেখতে আসছেন অনেকে।

আবু সুফিয়ান, ঠাকুরগাঁও থেকে এসেছেন পদ্মা সেতু দেখতে। তবে বিড়ম্বনায় পড়েছেন সেতুতে যানবাহন ছাড়া উঠতে না দেয়ায়। পদ্মা সেতু দেখতে আসা পর্যটকদের জন্য বাসের ব্যবস্থা করার দাবি তার। সেতুতে পায়ে হেঁটে যাতায়াত করা যায় না, তবুও সেতুর দুই প্রান্তে এসে জড়ো হয়েছেন অনেকে। দূর থেকে দেখছেন সেতু। 

সেতু পার হওয়ার জন্য পাওয়া যাচ্ছে মোটরসাইকেল। সেতুতে মোটরসাইকেলের টোল ১০০ টাকা। জনপ্রতি ২শ থেকে ৫শ টাকায় চলছে সেতু পারাপার। যাত্রীরা এই ভাড়া বেশি বললেও পদ্মা সেতু দেখার আনন্দে অতিরিক্ত ভাড়া গুণতেও সমস্যা নেই তাদের।সেতু দেখতে আসা উৎসুক মানুষ কিংবা যানবাহনের যাত্রী, সেতুর কাছাকাছি আসা মাত্রই সবার চোখমুখে খুশির ঝিলিক। উচ্ছ্বাসের অভিব্যক্তি।

MHS/shamim