যুদ্ধের কারণে শিশুদের মানসিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত

প্রকাশিত: ১৭-০৬-২০২২ ২০:৫২

আপডেট: ১৭-০৬-২০২২ ২০:৫২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ফিলিস্তিন, ইউক্রেন, সিরিয়া এবং ইয়েমেনে যুদ্ধ ও সহিংসতার কারণে শিশুরা বিষন্নতা, অশিক্ষা, শোক এবং ভয়ের মধ্যে বাস করছে। ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় প্রায় পাঁচ জনের মধ্যে চার শিশুই মানসিক অবসাদগ্রস্ত। আর বিশ্বজুড়ে প্রতি ৬ জনের ১ জন শিশু নির্মম বাস্তবতায় বঞ্চিত হচ্ছে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যর মতো মৌলিক অধিকার থেকে। সেভ দ্য চিলড্রেন প্রকাশিত প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

সেভ দ্য চিলড্রেনের প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুসারে, ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ১৫ বছরের সহিংসতায় পাঁচ শিশুর মধ্যে চারশিশুই বিষন্নতা, অশিক্ষা, শোক এবং ভয়ের মধ্যে বাস করছে। সেখানকার মানসিক অবসাদগ্রস্ত শিশুর সংখ্যা ৫৫ শতাংশ থেকে বেড়ে প্রায় ৮০ শতাংশ হয়েছে।  

সিরিয়ায় ১১ বছর ধরে চলা সহিংসতা, বাস্তুচ্যুতি এবং প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলোর অভাবে বাধাগ্রস্ত করে চলেছে শিশুদের জীবন। ২০২১ সালে দেশটির প্রায় ৯০০ শিশু প্রাণ হারিয়েছে বা আহত হয়েছে। আর চলমান এ সহিংসতায় সেখানে প্রায় ১৩ হাজার শিশু নিহত ও আহত হয়েছে। ফলে গত বছর সিরিয়ার প্রায় এক তৃতীয়াংশ শিশুর মধ্যে উদ্বেগ, দুঃখ, ক্লান্তি বা অনিদ্রা সমস্যাসহ মানসিক অবসাদের লক্ষণ দেখা গিয়েছে।

এছাড়া ইয়েমেনের সংঘাতও শিশুদের মানসিক স্বাস্থ্যের উপর প্রভাব ফেলেছে। ৫ বছরের সংঘাতে দেশটিতে প্রতি দশজনের মধ্যে একজন শিশু বিষন্নতা, হতাশাগ্রস্ত, শোক এবং ভয় অনুভব করে। সামগ্রিকভাবে দেশটির ৫২ থেকে ৫৬ শতাংশ শিশু তাদের মা-বাবার কাছ থেকে দূরে থাকলে নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে।

আর গত ২৪ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া ইউক্রেন যুদ্ধের পর থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ১ লাখ ৪০ হাজার শিশুকে মানসিক স্বাস্থ্য এবং মনোসামাজিক পরিষেবা দেয়া হয়েছে। জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনিসেফ এ পরিসেবা দিয়েছে।

ফিলিস্তিনি অঞ্চলে নিযুক্ত সেভ দ্য চিলড্রেনের কান্ট্রি ডিরেক্টর জেসন লি বলেছেন, বিষন্নতা, শোক এবং ভয় শিশুদের বিকাশ, শিক্ষা এবং সামাজিক মিথস্ক্রিয়ায় তাৎক্ষণিক এবং দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব ফেলে। এর উত্তরণে অবিলম্বে সংঘাত এবং অর্থনৈতিক উন্নতি প্রয়োজন বলেও উলে­খ করেন তিনি।

munia/sharif