২০২৬ বিশ্বকাপের ১৬টি ভেন্যু চূড়ান্ত

প্রকাশিত: ১৭-০৬-২০২২ ১৮:০০

আপডেট: ১৭-০৬-২০২২ ১৮:০০

ক্রীড়া ডেস্ক: ২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপ শুরু হতে এখনো ১৫৮ দিন বাকি। এরই মধ্যে পরের বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে ফিফা। ২০২৬ বিশ্বকাপ যুক্তরাষ্ট্র, মেক্সিকো, কানাডায় হবে, সেটা আগেই জানা গেছে। গতরাতে জানা গেছে এই বিশ্বকাপের ভেন্যুও। তিন দেশের ১৬টি ভেন্যুতে হবে এই বিশ্বকাপ।

২০২৬ বিশ্বকাপ থেকে বদলে যাচ্ছে ফুটবলের বিশ্ব আসরের চেহারা। শেষ কয়েকটি আসর বসেছিল ৩২ দল নিয়ে। যাতে বিশ্বকাপে খেলা হতো ৬৪ ম্যাচ। আগামী ২০২৬ বিশ্বকাপ থেকে দল বাড়ছে ১৬টি, যার ফলে বাড়ছে ম্যাচসংখ্যাও। খেলা হবে ৮০ ম্যাচ। সেজন্যে শেষ চারটি বিশ্বকাপের তুলনায় ২০২৬ আসরে ভেন্যুর সংখ্যাও বাড়াতে হয়েছে ফিফাকে। খেলা হবে ১৬টি ভেন্যুতে।

আয়োজনের দায়িত্বে মেক্সিকো আর কানাডা থাকলেও যুক্তরাষ্ট্রই থাকছে মূল আয়োজক। সেখানে ১১টি ভেন্যু পেয়েছে বিশ্বকাপের দায়িত্ব। এরপর মেক্সিকোর ৩টি, আর কানাডার ২ স্টেডিয়ামে চলবে বিশ্বকাপের লড়াই।

তবে এত সব ভেন্যুর ভিড়ে জায়গা হয়নি ১৯৯৪ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালের ভেন্যু রোজ বোলের। আবেদন করেও বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্ব পায়নি ভেন্যুটি। তবে সেই শহরে ঠিকই খেলা হবে বিশ্বকাপের। বেছে নেওয়া হয়েছে সোফি স্টেডিয়ামকে।

এক নজরে ২০২৬ বিশ্বকাপের

যুক্তরাষ্ট্রের ১১ স্টেডিয়াম

আটলান্টার মার্সিডিজ-বেঞ্জ স্টেডিয়াম, বোস্টনের জিলেট স্টেডিয়াম, ডালাসের এটি অ্যান্ড টি স্টেডিয়াম, হিউস্টনের এনআরজি স্টেডিয়াম, কানসাস সিটির অ্যারোহেড স্টেডিয়াম, লস অ্যাঞ্জেলসের সোফি স্টেডিয়াম, নিউইয়র্ক/ নিউজার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়াম, মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়াম, ফিলাডেলফিয়ার লিঙ্কন ফিন্যান্সিয়াল স্টেডিয়াম, সান ফ্রান্সিসকো বের লিভাইস স্টেডিয়াম, সিয়াটলের লুমেন ফিল্ড স্টেডিয়াম।

মেক্সিকোর তিনটি স্টেডিয়াম

গুয়াদালাহারার এস্তাদিও আকরোন, মেক্সিকো সিটির এস্তাদিও আজতেকা এবং মন্তেরেইয়ের এস্তাদিও বিবিভিএ বানকোমার।

কানাডার দুটি স্টেডিয়াম

টরন্টোর বিএমও ফিল্ড, ও ভ্যাঙ্কুভারের বিসি প্লেস।

MNU/sharif