২১ জেলার মানুষের ভাগ্য বদলাবে পদ্মাসেতু

প্রকাশিত: ১৭-০৬-২০২২ ১৫:৩৯

আপডেট: ১৭-০৬-২০২২ ১৯:১১

তারেক সিকদার: পদ্মা সেতু উদ্বোধনের অপেক্ষা আর ৮ দিন। এরপর দক্ষিণাঞ্চলসহ সারাদেশের মানুষের অপেক্ষার শেষ হবে। পদ্মার অপর পাড়ের ২১ জেলায় শুরু হয়েছে জীবন জীবিকার নতুন কর্ম পরিকল্পনা। গোপালগঞ্জের ব্যবসায়ীরা পদ্মা সেতুর সুবিধা কাজে লাগাতে নানা প্রস্তুতি শুরু করেছেন।

বহুদিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবে রূপ নিয়ে খরস্রোতা পদ্মা নদীর দু’পাড়ের দুই অঞ্চলকে যুক্ত করেছে পদ্মা সেতু। দেশের বৃহত্তম এই সেতু দক্ষিণাঞ্চলের জেলা গোপালগঞ্জসহ পুরো অঞ্চলের অর্থনৈতিক উন্নয়নের নতুন দ্বার উন্মোচন করতে যাচ্ছে। 

রাস্তায় ঘন্টার পর ঘন্টা রোগী নিয়ে ফেরির জন্য অপেক্ষা, মহাসড়কে যানজটের কারণে বিদেশগামীদের ফ্লাইট মিস হওয়া, চাকুরির পরীক্ষার্থী কিংবা ভর্তি পরীক্ষার্থীদের সময় নষ্ট হওয়া নিত্যদিনে ঘটনা ছিল এ অঞ্চলের মানুষের জীবনে। তাই এই সেতু এসব অঞ্চলের মানুষের দিনবদলের প্রতীক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।

পদ্মা সেতু চালু হবার পর দ্রুত ঢাকা আসা যাওয়া করতে পারবে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ। তবে এ জন্য ঢাকা-গোপালগঞ্জ বাস ভাড়া কমানোর দাবি জানান অনেকে। পদ্মা সেতু দিয়ে ঢাকার সাথে সরাসরি সংযোগ ঘটলে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে এই জনপদের। সেতুকে কেন্দ্র করে গোপালগঞ্জে গড়ে উঠবে শিল্প-কারখানা। খুলছে নতুন অর্থনৈতিক সম্ভাবনার দুয়ার। 

পদ্মা সেতুর ফলে গোপালগঞ্জসহ দক্ষিণাঞ্চলের ২১টি জেলোর যোগাযোগ ও অথনৈতিক ব্যবস্থার উন্নতি ঘটবে বলে আশা করছে সংশ্লিষ্টরা।

TH/sharif