পলাতক জোবায়দার মামলা শুনে সমালোচিত হাইকোর্ট

প্রকাশিত: ০১-০৬-২০২২ ২৩:২৯

আপডেট: ০১-০৬-২০২২ ২৩:২৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : দুর্নীতির মামলায় পলাতক আসামি ডাক্তার জোবায়দা রহমানের একটি আবেদন শুনে হাইকোর্টের এক বেঞ্চের বিচারকরা সংবিধান লংঘন করেছেন। বুধবার প্রকাশিত একটি লিখিত রায়ে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ এ কথা বলেছে। রায়টি মৌখিকভাবে ঘোষণা করেছিল গত ১৩ই এপ্রিল। সেই রায়ে জোবায়দার আবেদনটি আপিল বিভাগ সরাসরি খারিজ করে। আপলি বিভাগে জোবায়দার আবেদনটি ছিল হাইকোর্টের একটি রায়ের বিরুদ্ধে। কিন্তু সর্বোচ্চ আদালত বলেছে, পলাতক আসামী হিসেবে জোবায়দা আপিল বিভাগে এমনকি হাইকোর্টেও কোন আবেদন করতে পারেন না। 

আবেদনের জন্য তাকে আগে আত্মসমর্পণ করতে হবে। ২০০৭-৮ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দুদক জোবায়দার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা করে। মামলাটি বাতিলের জন্য পলাতক জোবায়দা ২০০৯ সালে হাইকোর্টে আবেদন করেন। হাইকোর্ট প্রথমে মামলার কাজ স্থগিত করে রুল দেয়। ২০১৭ সালে সেই রুলের নিষ্পত্তি করে হাইকোর্ট বেঞ্চ, জোবায়দার আবেদন নাকচ করে এবং তাকে আত্মসমর্পণ করতে বলে। 

পলাতক জোবায়দা হাইকোর্টের এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন। কিন্তু জোবায়দা পলাতক বলে সর্বোচ্চ আদালত তা সরাসরি বাতিল করে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও কয়েকটি মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত আসামী তারেক রহমানের স্ত্রী জোবায়দা বর্তমানে বৃটেনে থাকেন। 

 

EHM/prabir