সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে স্বাধীনতা দিবস

প্রকাশিত: ২৬-০৩-২০২২ ০৯:২১

আপডেট: ২৬-০৩-২০২২ ১৮:১৯

নিজস্ব সংবাদদাতা: যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসবমুখর পরিবেশে সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। সকাল থেকে দেশজুড়ে স্মৃতিসৌধ ও শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে মুক্তিযুদ্ধের বীর শহিদদের স্মরণ করা হয়। এছাড়া দিবসটি পালণে দিনভর আছে নানা আয়োজন।

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের ভোর থেকেই মুক্তিযুদ্ধে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে স্মৃতিসৌধগুলোতে ঢল নামে সর্বস্তরের মানুষের। দিনটিকে ঘিরে কুচকাওয়াজ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানা আয়োজন চলছে দেশজুড়ে।  

বন্দরনগরী চট্টগ্রামে মিউনিসিপাল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণ করে নগরবাসী। শুরুতেই চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এছাড়া বিভিন্ন স্কুল কলেজে আলোচনা সভাসহ নানা আয়োজনে পালিত হচ্ছে দিবসটি।

রংপুরে দিবসটি উপলক্ষে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে ৩১ বার তোপধ্বনিরর মধ্য দিয়ে স্বাধীনতার বীর শহিদদের স্মরণ করা হয়। সকালে রংপুর স্টেডিয়ামে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে কুচকাওয়াজ ও মনোজ্ঞ ডিসপ্লে  হয়। দিনাজপুরের হাকিমপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজ মাঠে পায়রা উড়িয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয়পতাকা উত্তোলন করা হয়। 

খুলনায় সূর্যোদয়ের পর বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে সর্বস্তরের মানুষ। নগরীর গল­ামারী বধ্যভূমি স্মৃাতসৌধে প্রথমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। মেহেরপুরে কলেজমোড়ে স্মৃতিসৌধে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনের পক্ষে ফুল দিয়ে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক। নড়াইলে শহীদ স্মৃতি স্তম্ভ ,গণকবর ,বধ্যভূমি ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুর‌্যালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। 

টাঙ্গাইলে ৩১ বার তোপধ্বনি, ফুলেল শ্রদ্ধা, কুচকাওয়াজ ও মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশসহ নানাকর্মসূচির মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা দিবস পালিত হচ্ছে। গাজীপুরে সকালে শহিদ স্মৃতি স্তম্ভে শ্রদ্ধা নিবেদনের পরে শহীদ বরকত স্টেডিয়ামে স্বাধীনতা দিবসের কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়। পরে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। 

নওগাঁয় দিবসের প্রথম প্রহরে শহরের মুক্তির মোড়ে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে প্রথমে ফুল দিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। বগুড়ায় সূর্যদোয়ের সাথে সাথে জিলা স্কুল মাঠে ৩১ বার তোপধ্বনি ও জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের সূচনা করা হয়। 

নেত্রকোণায় শহীদ স্মৃতি ফলকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় সর্বস্তরের মানুষ। ঝিনাইদহে শহরের পৌর স্মৃতি সৌধে শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পনের মধ্য দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দিনটি পালনে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচীর আয়োজন রয়েছে।

এছাড়াও কুমিল্লা, সিরাজগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর ফরিদপুরসহ সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপিত হচ্ছে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস।

/prabir