পাবনায় অবহেলিত মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থান

প্রকাশিত: ২৫-০৩-২০২২ ০৯:৫১

আপডেট: ২৫-০৩-২০২২ ১১:০৫

পাবনা সংবাদদাতা: যথাযথভাবে সংরক্ষণ করা হচ্ছে না পাবনায় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস। অযত্ন-অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থান ও বধ্যভূমিগুলো। সেই সাথে সরকারি জেলা বাতায়নে রয়েছে তথ্যগত ভুল। অবিলম্বে পাবনায় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও স্মৃতিচিহ্নগুলো সংরক্ষণের দাবি জানিয়েছেন জেলাবাসী। 

স্বাধীনতার ৫০ বছর কেটে গেলেও মুক্তিযুদ্ধে পাবনার গৌরবময় স্থান  ও গণকবরগুলো সংরক্ষণে এখনো কার্যকর উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। দেশের শীর্ষ দুই যুদ্ধাপরাধী মতিউর রহমান নিজামী ও আব্দুস সুবহানের নির্দেশে পাবনায় অসংখ্য গণহত্যার ঘটনা ঘটলেও, তাদের নাম উল্লেখ করা নেই রাষ্ট্রীয় ওয়েব পোর্টালে। জেলা প্রশাসনের বাতায়নে যুক্ত মুক্তিযুদ্ধের সংক্ষিপ্ত ইতিহাসে রয়েছে তথ্যগত ভুল। এনিয়ে ক্ষুব্ধ জেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যরা।

একাত্তরের মার্চে মুক্তিযুদ্ধের শুরুতেই পাবনা আক্রমণ করে পাকিস্তানি সেনারা। ঘাঁটি গাড়ে পাবনার পুরাতন টেলিফোন এক্সচেঞ্জ ভবন ও বিসিক শিল্পনগরীতে। চলে হত্যাযজ্ঞ। 

একাত্তরের বিভিন্ন বর্বরতার সাক্ষ্য বহন করা গণকবর, বধ্যভূমি ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত স্থানগুলো অবিলম্বে সংরক্ষণের দাবিও পাবনাবাসীর।

মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরতে পাবনায় জাদুঘর স্থাপন এবং অরক্ষিত গণকবর ও বধ্যভূমি সংরক্ষণে উদ্যোগ নেবে সরকার- এমনটাই প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

 

MHS/prabir