রংপুর টাউন হলে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ

প্রকাশিত: ২৫-০৩-২০২২ ০৯:৩৪

আপডেট: ২৫-০৩-২০২২ ০৯:৩৪

রংপুর সংবাদদাতা: মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় রংপুরে হানাদার বাহিনীর নির্যাতনের ক্যাম্প- টাউন হলে নির্মিত হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ। ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে হানাদাররা রংপুর অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকার নারী-পুরুষদের ধরে এনে নির্মম নির্যাতন ও হত্যা করে মরদেহ ফেলে রাখতো এই ক্যাম্পে। শহীদদের স্মৃতিবিজড়িত সেই স্থানেই গড়ে উঠেছে নৃসংশ হত্যাযজ্ঞের স্মৃতি স্মারক। এদিকে, বধ্যভূমি স্থাপনে দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হওয়ায় খুশি রংপুরবাসী। 

ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির উর্বর ভূমি রংপুর। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ আর সংগ্রামের নানা ইতিহাস জড়িয়ে আছে এই জেলার সাথে। একইসাথে ভারতীয় উপমহাদেশের সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের সূতিকাগার ও আন্দোলন সংগ্রামের পীঠস্থান এই রংপুর। আর সেই সাংস্কৃতিক পল্লীর প্রাণ রংপুর টাউন হল। তবে, শুধু এ কারণেই নয়- টাউন হল রংপুরবাসীর মনে দাগ কেটে আছে মুক্তিযুদ্ধের করুণ স্মৃতির কারণে। 

১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে পাকিস্তানি হানাদাররা রংপুর অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকার নারীÑপুরুষ,যুবকÑযুবতিদের ধরে এনে নির্মম নির্যাতন ও হত্যা করে মরদেহ ফেলে রাখতো এই টাউন হল ক্যাম্পে। সেই স্থানেই গড়ে উঠেছে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি স্মারক। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে টাউন হল বধ্যভূমি নির্মিত হওয়ায় খুশি শিক্ষার্থী ও নতুন প্রজন্ম। 

সকলের জন্য এই বধ্যভূমিকে গুরুত্ববহ করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানান শিল্পকলা একাডেমির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক। 

ঘাতকদের নির্মমতায় কলংকিত রংপুরের বধ্যভূমি নতুন প্রজন্মের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা গড়ে তুলবে- এমন  প্রত্যাশা বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের।

 

MHS/prabir