তিন দিনের বর্নিল পটিয়া উৎসব শেষ

প্রকাশিত: ২৫-০৩-২০২২ ০১:৩৬

আপডেট: ২৫-০৩-২০২২ ১১:০৭

চট্টগ্রাম প্রতিবেদক: বর্ণিল আয়োজন, সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ এবং ৭৮জন গুণী ব্যক্তিত্বকে সংবর্ধনা প্রদানের মধ্য দিয়ে শেষ হলো তিনদিনের পটিয়া উৎসব। মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে পটিয়া ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে পটিয়া স্কুল মাঠে ছিলো এই আয়োজন। সবার স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে যা পরিণত হয় মিলনমেলায়। শেষ দিনে, জাতীয় সংসদের হুইপ ও পটিয়ার সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী বলেন, এই উৎসব পটিয়ার ঐতিহ্য রক্ষায় নতুন প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করবে। 

চট্টগ্রামের পটিয়ায় আনন্দে-উচ্ছাসে শেষ হল তিনদিনের পটিয়া উৎসব। গত দুই'শ বছরে পটিয়ায় জন্ম নেয়া যে সব ব্যক্তিত্ব দেশ-বিদেশে বিভিন্ন পেশায় অবদান রেখেছেন, এমন ৭৮ জনকে সম্মানিত করা হয় এ আয়োজনে। জাঁকজমকপূর্ণ এই উৎসব হয়েছে প্রশংসিত ও আলোচিত। 

আয়োজনের শেষ দিন বৃহস্পতিবার দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত পটিয়ার কৃতি ৩৫ ব্যক্তিত্বকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। উচ্ছসিত প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন সম্মাননা প্রাপ্ত বিশিষ্টজনেরা। 

তিনদিনের পটিয়া উৎসবে অংশ নেন সমাজের সর্বস্তরের মানুষ। উৎসবের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক এবং জাতীয় সংসদের হুইপ ও পটিয়ার সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী বলেন, এ আয়োজন পটিয়ার ইতিহাস-ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতা রক্ষায় নতুন প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করবে। গুণীজনদের পদাঙ্ক অনুসরণ করার প্রেরণা জোগাবে। 

এই উৎসব উপলক্ষে এলাকার ৫০ জন বেকার যুবককে ৫ হাজার টাকা করে সহযোগিতা এবং আয়ের উৎস হিসেবে একটি করে রিকশা ভ্যান প্রদান করা হয়। প্রতি দুই বছর অন্তর পটিয়া ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে এই উৎসব আয়োজনের ঘোষণাও দিয়েছেন এর উদ্যোক্তারা।  

 

MHS/habib