শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এখনো অবরুদ্ধ

প্রকাশিত: ২৫-০১-২০২২ ০২:১৬

আপডেট: ১৪-০২-২০২২ ১০:১৬

সিলেট সংবাদদাতা: উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সেবা না দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের স্বেচ্ছাসেবক দলটি। ফলে অনশনরত শিক্ষার্থীদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে শঙ্কিত আন্দোলনকারীরা। এছাড়া তাদের অভিযোগ, যে মোবাইল ব্যাংকিং নাম্বারগুলোতে সাবেক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা পাওয়া যেত সেই নাম্বারগুলো কাজ করছে না। ফলে সার্বিক চাপের মুখে রয়েছেন তারা। তবুও আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তে অনড় তারা। 

গত ১৭ই জানুয়ারি থেকে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ১৯শে জানুয়ারি থেকে আমরণ অনশনে বসে ২৮ জন শিক্ষার্থী। ওইদিন রাত থেকে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সার্বক্ষণিক সেবা প্রদান করে আসছিলেন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের একটি স্বেচ্ছাসেবক দল। অথচ এখন তারা সেবা না দেয়ার কথা জানিয়েছেন। 

সোমবার রাতে এই সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা জানান, অনশনরত শিক্ষার্থীদের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। এর অবস্থায় সেবা না পেলে বড় কোন দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা করছেন তারা। 

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, আন্দোলন চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ ও সাবেক শিক্ষার্থীরা মানবিক ও আর্থিক সহয়তা দিয়ে আসছিলেন। অথচ সোমবার দুপুর থেকে যেসব মোবাইল ব্যাংকিং নম্বরে আর্থিক সহায়তা দেয়া হচ্ছিল সে নম্বরগুলো কাজ করছে না। এ ব্যাপারে কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করা হলেও কোন সুফল মেলেনি। এসকল ঘটনাগুলো উদ্দেশ্য প্রণোদিত দাবি করে শিক্ষার্থীরা জানান, উপাচার্যের পদত্যাগ না হওয়া পর্যন্ত তাদের কর্মসূচি চলবে। 

রোববার সন্ধ্যা থেকে উপাচার্যের বাসভবনটি বিদ্যুৎ বিছিন্ন রাখা কোন সহিংস ঘটনা নয় বলে জানায় শিক্ষার্থীরা। তাদের দাবিতে কোন সাড়া না পাওয়ায় এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। তবে, সোমবার মধ্যরাতে বিদ্যুৎ সংযোগ পুনঃস্থাপন করে সেই অবস্থান থেকে সরে এসেছেন তারা। এছাড়া অন্য যেসব অভিযোগ উঠছে তা ঠিক নয় বলে জানান আন্দোলনকারীরা। 

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙানারে জন্য পুনরায় চেষ্টা করলে তারা তা প্রত্যাখ্যান করে। পরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মশাল মিছিল বের করে। মিছিল শেষে মোমবাতি প্রজ্বলন করে শিক্ষার্থীরা।

অন্যদিকে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে তাঁর বাসভবন মঙ্গলবারও অবরোধ করে রেখেছে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। 

/admiin