ধর্মঘটে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারেনি বহু শিক্ষার্থী

প্রকাশিত: ০৩:৩১, ০৬ নভেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৩:৩১, ০৬ নভেম্বর ২০২১

ডেস্ক প্রতিবেদক: ডিজেল ও কেরোসিনের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে সারাদেশে চলা পরিবহন ধর্মঘটের কারণে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারেনি বহু শিক্ষার্থী। গণপরিবহন না থাকা এবং বুয়েট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ভর্তি পরীক্ষাও না পেছানোয় আজকের পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি অনেক শিক্ষার্থী।

কেউ কেউ বিভিন্ন জেলা থেকে মোটরসাইকেল ও বিকল্প যানবাহনে রাজধানীতে হলেও অনেকেই পরীক্ষার হলে নির্দিষ্ট সময়ের আগে পৌঁছাতে পারেননি। বাকিরা ব্যক্তিগত গাড়িতে চড়ে, সিএনজি অটোরিকশা, মোটরসাইকেল ও রিকশায় চড়ে বাড়তি ভাড়ায় পরীক্ষায় অংশ নেয়।   

তবে ধর্মঘটের কারণে অটোরিকশা, রিকশা, লেগুনায় নেয়া হয় কয়েকগুণ বেশি ভাড়া। তাই বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েই শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে কেন্দ্রে পৌঁছায়। 

শনিবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজের বিজ্ঞান ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা। ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষায় ৭৫ শতাংশ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। অর্থাৎ পরীক্ষার হলে যায়নি ২৫% প্রার্থী। এবার বিজ্ঞান ইউনিটে মোট ছয় হাজার ৫০০টি আসনের বিপরীতে লড়ছেন ৪১ হাজার ৯৪ জন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী। 

একইদিন আজ শনিবার বুয়েটের পরীক্ষায় অংশ নিতে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে শুক্রবার ঢাকায় আসার টিকেট কেটে রাখলে ধর্মঘটের খবর শুনে বৃহস্পতিবারই ঢাকায় আসতে হয়েছে অনেকের। ভূক্তভোগী একজন বলেন, “অনেক স্ট্রাগল করে প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষা দিয়ে মূল পর্বে ৬ হাজারের মধ্যে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পেয়েছে আমার মেয়ে। এটা যদি মিস হত, তাহলে তার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার স্বপ্ন ধুলিস্যাৎ হয়ে যেত।”

ছেলে অনির্বাণ রায়কে নিয়ে ঝিনাইদহের শৈলকূপা থেকে পরীক্ষা দিতে বৃহস্পতিবারই ঢাকায় চলে আসেন অশোক  রায়।
তিনি বলেন, “অনেক ভোগান্তি সহ্য করে কয়েকবার গাড়ি পরিবর্তন করে ভেঙে ভেঙে ঢাকায় এসেছি। এখন কীভাবে বাড়ি ফিরব সেই চিন্তায় আছি।”

ঢাকায় এসেও ভোগান্তিতে পড়েছেন পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা। অনেকে আত্মীয়-স্বজনের বাসায়, কেউ হোটেলে থেকে পরীক্ষা কেন্দ্রে আসতে হয়েছে সিএনজি, বাইক কিংবা রিকশায়।

চট্টাগ্রাম থেকে মেয়ে তাশফিয়া তাবাসসুমকে নিয়ে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষার জন্য আসেন তার বাবা রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, “শুক্রবার রাতে মেয়েকে নিয়ে ঢাকা আসার টিকেট কেটেছিলাম। একদিন আগে অনলাইন মিডিয়ায় জানতে পারলাম, কাল থেকে গণপরিবহন ধর্মঘট। পরে অনেক চেষ্টা করে বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় দুটা টিকেট পেলাম, এও বাসের একদম পেছনে। আত্মীয়ের বাসায় থেকে সকালে সিএনজি করে পরীক্ষা কেন্দ্রে আসতে হয়েছে।”

বুয়েটের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক শ্রেণিতে নতুন শিক্ষার্থী ভর্তি করাতে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষার পর শনিবার সকাল ১০টায় চূড়ান্ত পর্বের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়।

মডিউল 'এ'-তে ‘ক’ গ্রুপ ও ‘খ’ গ্রুপে গণিত, পদার্থ, রসায়নের উপর ৪০০ নম্বরে দুই ঘণ্টার এই লিখিত পরীক্ষা শেষ হয় দুপুর ১২টায়।

‘খ’ গ্রুপে আবেদনকারীদের মডিউল 'বি'- তে ২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত মুক্তহস্ত অঙ্কন, দৃষ্টিগত ও স্থানিক ধীশক্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *

loading...
loading...