ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি'র পদোন্নতি

প্রকাশিত: ০৪:০৯, ১৮ অক্টোবর ২০২১

আপডেট: ১১:৩৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম ও র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুনকে গ্রেড-১ পদে পদোন্নতি প্রদান করা হয়েছে। আজ সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ-১ অধিশাখার উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এই পদোন্নতি দেওয়া হয়।

অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক র‌্যাঙ্কধারী এই দুই কর্মকর্তা এত দিন জাতীয় বেতন স্কেলের গ্রেড-২ অনুযায়ী বেতন-ভাতা পেয়ে আসছিলেন। এখন তাঁদের বেতন-ভাতা হবে গ্রেড-১ অনুযায়ী। সরকারি বেতন স্কেল অনুযায়ী, গ্রেড-২–এ মূল বেতন ৬৬ হাজার টাকা আর গ্রেড-১–এ মূল বেতন ৭৮ হাজার টাকা। পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) পদটি জ্যেষ্ঠ সচিব পদমর্যাদার। তাঁর মূল বেতন ৮২ হাজার টাকা। এ সিদ্ধান্তের ফলে বেতন বাড়লেও আগের পদেই থাকছেন ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাবের মহাপরিচালক।

ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম ২০১৯ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ডিএমপির ৩৪তম কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব নেন। তিনি অষ্টম ব্যাচের কর্মকর্তা। ১৯৮৯ সালের ২০ ডিসেম্বর এএসপি হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন। তার গ্রামের বাড়ি চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায়। তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। কর্মজীবনে তিনি নারায়ণগঞ্জ, পটুয়াখালী, সুনামগঞ্জ ও কুমিল্লা জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, চট্টগ্রামের রেঞ্জ ডিআইজি ও ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। অতিরিক্ত আইজিপি হিসেবে পদোন্নতি পাওয়ার পর তিনি অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এইচআরএম শাখার প্রধান ও সিআইডি প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এদিকে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন ১৯৬৪ সালের ১২ জানুয়ারি সুনামগঞ্জের শাল্লা থানাধীন শ্রীহাইল গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকসহ (সম্মান) স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। বিসিএস ১৯৮৬ ব্যাচের কর্মকর্তা হিসেবে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পদে ১৯৮৯ সালে তিনি বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন। তিনি র্যাব ফোর্সেসের মহাপরিচালক হিসেবে যোগদানের আগে তিনি সিআইডি প্রধান হিসেবে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশ পুলিশে অসামান্য অবদান ও অনন্য সেবাদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি ‘বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল (বিপিএম) ও প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল (পিপিএম) পদকে ভূষিত হন। চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বসনিয়া-হার্জেগোভিনা, লাইবেরিয়া ও দারফুরে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অসামান্য অবদান রেখেছেন। তিনি দেশ-বিদেশের বেশ কিছু মর্যাদাপূর্ণ পেশাগত প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন।

MHS/MSI

এই বিভাগের আরো খবর

১৯০ কোটি টাকা পাচার করেছে আপন জুয়েলার্স

আশিক মাহমুদ: অর্থ পাচার ও শুল্ক ফাঁকি...

বিস্তারিত
রাজৈরে শিশু হত্যার দায়ে ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড

মাদারীপুর সংবাদদাতা: মাদারীপুরের...

বিস্তারিত
কুয়েতে সাবেক এমপি পাপুলের ৭ বছরের কারাদণ্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা: অর্থ পাচারের পর...

বিস্তারিত
পিছিয়ে গেল আবরার হত্যা মামলার রায়

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ প্রকৌশল...

বিস্তারিত
আবরার হত্যা মামলার রায় কাল 

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ প্রকৌশল...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *