বিশ্বের সব দেশে টিকা নিশ্চিতের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত: ১১:৪৫, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৮:৪০, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য একটি বৈশ্বিক রোডম্যাপের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘে পাঁচ দফা প্রস্তাব তুলে ধরেছেন। এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, এসডিজি’র লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য এমন একটি সাহসী ও উচ্চাভিলাষী বৈশ্বিক রোডম্যাপ প্রণয়ন করা প্রয়োজন, যেখানে কেউ পেছনে পড়ে থাকবে না। করোনা পরিস্থিতি থেকে স্থায়ীভাবে উত্তরণে বিশ্বের সব দেশে টিকা নিশ্চিত করার আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নিউইয়র্কে অবস্থানরত প্রধানমন্ত্রী ২০শে সেপ্টেম্বর টেকসই উন্নয়নের ওপর নবম বার্ষিক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে থাকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোমবার একাধিক কর্মসূচিতে অংশ নেন। এরমধ্যে টেকসই উন্নয়নের ওপর নবম বার্ষিক আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে। আর্থ ইনস্টিটিউট, কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, গ্লোবাল মাস্টার্স অব ডেভেলপমেন্ট প্র্যাকটিস এবং ইউএন সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট সল্যুশনস নেটওয়ার্ক আয়োজিত এই সম্মেলনে অনলাইনে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। 

এসডিজিএস অর্জন নিশ্চিত করতে যথাযথভাবে বৈশ্বিক অতিমারি করোনা মোকাবেলা করা প্রয়োজনীয়তাসহ শেখ হাসিনা তাঁর বক্তব্যে পাঁচ দফা প্রস্তাব তুলে ধরেন। তিনি বলেন, জরুরি ভিত্তিতে বিশ্বের সব জায়গায় টিকা নিশ্চিত করা দরকার। ২০৩০ এজেন্ডা বাস্তবায়নে সম্পদের ব্যবধান কমাতে হবে। তাই চলমান বৈশ্বিক মহামারিতে বিশ্বব্যাপী যে দারিদ্র্য বৃদ্ধি পাচ্ছে তা কাটিয়ে উঠতে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, সামাজিক সুরক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন এবং বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও উদ্ভাবনীর ওপর গুরুত্ব দেয়া আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। এসব বিষয়ে বাংলাদেশের প্রস্তুতি ও অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। 

এর আগে বাংলাদেশ সময় সোমবার রাতে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস ও যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আহবানে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবেলায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর পক্ষে জোরালো অবস্থান তুলে ধরেন। তিনি বলেন, কার্বন নি:সরণকারী দেশ না হয়েও জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বেশী সমস্যায় পড়ছে উন্নয়নশীল দেশগুলো। এসব দেশের ক্ষতিপূরণ দিতে জলবায়ু তহবিলে প্রতিশ্র“ত অর্থ পরিশোধে উন্নত দেশগুলোকে তাগিদ দেন তিনি।

এদিকে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ  উপলক্ষে জাতিসংঘের সদরদপ্তরের বাগানে একটি গাছের চারা রোপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর সম্মানে সেখানে একটি বেঞ্চও উৎসর্গ করেন প্রধানমন্ত্রী। এ উদ্যোগ গ্রহণ করায় সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

FEJ/MSI

এই বিভাগের আরো খবর

মালয়েশিয়ায় নিখোঁজ পাবনার যুবক

নাটোর সংবাদদাতা: দেড় বছরেরও বেশি সময়...

বিস্তারিত
দেড় বছর পর ঢাকা-কুয়েত ফ্লাইট চালু

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা অতিমারির...

বিস্তারিত
বাংলাদেশিদের ইতালিতে প্রবেশের অনুমতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনার কারণে চার...

বিস্তারিত
ইন্টারন্যাশনাল গ্লোরি আওয়ার্ড পেলেন তপন রায়

অনলাইন ডেস্ক: ভারতের অন্যতম শ্রেষ্ঠ...

বিস্তারিত
ঋণ পেলেন ১৫ হাজার প্রবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রবাসীদের জন্য...

বিস্তারিত
অবশেষে কাল লন্ডন যাচ্ছেন সেই জামিলা

রীতা নাহার: সিলেট ওসমানি বিমানবন্দরে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *