করোনার টিকা পেতে প্রবাসী শ্রমিকদের ভোগান্তি

প্রকাশিত: ২১-০৯-২০২১ ১০:১০

আপডেট: ২৫-০১-২০২২ ০৯:৫৮

মাবুদ আজমী: করোনার টিকা পেতে চরম বিশৃংখলার মধ্যে পড়েছে প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকরা। রাজধানীর পাঁচটি কেন্দ্রে প্রতিদিন হাজার হাজার শ্রমিক টিকা নিতে গিয়ে বিড়ম্বনার শিকার হন। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো শ্রমিকদের চার ধরনের টিকা নেয়ার শর্ত দিয়েছে। এই টিকা পেতে কেন এতো ভোগান্তি তার কোন সদুত্তর তারা পাচ্ছে না সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে।

সময়মত টিকা না পাওয়ায় বিদেশে চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে রয়েছে বাংলাদেশি শ্রমিকরা। প্রতিদিন টিকার জন্য ভিড় করছেন রাজধানীর পাঁচটি কেন্দ্রে। তাদের অভিযোগ, নিবন্ধন করে এক মাসের বেশি সময় ধরে অপেক্ষা করছেন এসএমএসের জন্য। অনেকে এসএমএস পেলেও কাঙ্খিত টিকা পাচ্ছেন না।

টিকা প্রত্যাশীদের বেশিরভাগই সৌদি আরবগামী শ্রমিক। সৌদি আরবে কাজ করতে বিদেশি শ্রমিকদের ফাইজার, মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও জনসন এন্ড জনসনের টিকা গ্রহণ বাধ্যতামূলক। কিন্তু টিকা পেতে দিনের পর দিন ঘুরছেন শ্রমিকরা। অনেকের ভিসার মেয়াদ শেষ হবার পথে।

জনশক্তি রফতানীকারকরা বলছেন, প্রতি মাসে শুধুমাত্র সৌদিতেই ৬০ হাজারের বেশি শ্রমিককে ভিসা দেয়া হয়। কিন্তু সম্প্রতি টিকা জটিলতায় এর অর্ধেক যেতে পারছেন।

যে শ্রমিকদের চীনের সিনোফার্মের টিকা দেয়া হয়েছে, চাকরিদাতা দেশের চাহিদা অনুযায়ী তাদের বুস্টার ডোজ দিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়। কিন্তু বুস্টার ডোজ দেয়ার কোন সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। শ্রমবাজার টিকিয়ে রাখতে বিদেশগামী শ্রমিকদের দ্রুত নির্দিষ্ট টিকা দেয়ার দাবি জানিয়েছে খাত সংশ্লিষ্টরা।

/admiin