হত্যা রহস্য উদঘাটন করলো পিবিআই

প্রকাশিত: ০৬:০২, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৬:০২, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

আশিক মাহমুদ: বড় ভাইকে কে বা কারা খুন করেছে। তাই নিজেই বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন ছোট ভাই। মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন- পিবিআই। মাত্র দু'মাসেরও কম সময় তদন্ত করে সংস্থাটি চাঞ্চল্যকর এই মামলার রহস্য উদঘাটন করেছে। তাদের তদন্তে বেরিয়ে এসেছে এই মামলার বাদীই এখন প্রধান আসামি।

মামলার তথ্য দাতা হিসেবে বাদীকে মূল অপরাধী হিসেবে সন্দেহ করা প্রচলিত ধারণার পরিপন্থী। কারণ ভিকটিমের পক্ষে তাকেই মামলা প্রমাণ করতে হয়। তাই বাদীকে দোষী প্রমাণ করতে যথেষ্ট ও সুনির্দিষ্ট সাক্ষ্য-প্রমাণের প্রয়োজন হয়। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে কিশোরগঞ্জের ভৈরব থানায়। আপন ভাইকে নৃশংসভাবে খুন করেছে আসামি নিজেই।

পিবিআই সূত্রে জানা গেছে, পারিবারিক দ্বন্দ্ব, জমিজমা নিয়ে বিরোধ এবং নেশা করতে বাধা দেওয়ায় গত ২৬শে জুলাই বড় ভাই স্বপন মিয়াকে হত্যা করে তার আপন ছোট ভাই রিপন মিয়া। হত্যাকাণ্ডের সময় রিপনের সহযোগী ছিলেন আরো ৫ জন। কিন্তু হত্যাকাণ্ডের পর এই রিপনই বাদী হয়ে এজাহারে তিনজনের নাম উল্লে­খ করে এবং অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, হত্যাকাণ্ডের শিকার স্বপন মিয়া কিশোরগঞ্জের ভৈরব থানার চাঁনপুর গ্রামের দেওয়ান আলীর মেঝ ছেলে। তারা ৪ ভাই ও ১ বোন। ভিকটিম স্বপন মিয়া স্থানীয় বাজারে চা বিক্রেতা। আর আসামি মো. রিপন মিয়া ভিকটিমের ছোট ভাই। দীর্ঘদিন মালয়েশিয়া প্রবাসি ছিল। বছর দুই আগে মো. রিপন মিয়া মালয়েশিয়া থেকে দেশে ফিরে করোনার আটকা পড়েন। পরে বাড়ীর পাশে মাছের খামারসহ কৃষিজমি আবাদ করতো।

পিবিআই’র সার্বিক তদন্তে জানা যায়, আসামি রিপন মিয়া তার পরিচিত কয়েকজন বন্ধুর সাথে নিয়মিত ইয়াবা ও গাঁজা সেবন করতো। এছাড়া ভিকটিম স্বপন মিয়ার সাথে তার ছোট ভাই আসামি রিপন মিয়ার পারিবারিক বিভিন্ন কারণসহ বাবার জমিজমা নিয়ে বিরোধ ছিল। রিপন মিয়াকে নেশা করতে ভিকটিম স্বপন মিয়া বাধা দিত। উক্ত নেশার বিষয়টি ভিকটিমের মাকে নিয়মিতভাবে জানাতো। তাই রিপন মিয়া স্বপনের উপর ক্ষিপ্ত ছিল। এ ঘটনার জেরেই রিপন তার ভাই স্বপনকে প্রথমে এসিড মেরে ও পরে পানিতে ডুবিয়ে ঘাড় ভেঙ্গে নৃশংসভাবে হত্যা করে। 

পিবিআই’র কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশের ইউনিট ইনচার্জ পুলিশ সুপার শাহাদাত হোসেনের নেতৃত্বে প্রধান আসামি রিপন মিয়া, আব্দুর রব, ইমান আলী, ও সবুজকে গত ১৭ই সেপ্টেম্বর নিজ নিজ বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে পিবিআই’র কিশোরগঞ্জ টিম। গ্রেফতারের পর রিপন মিয়া হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে।

AM/MSI

এই বিভাগের আরো খবর

ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি'র পদোন্নতি

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা মেট্রোপলিটন...

বিস্তারিত
রকি হত্যার প্রধান আসামিসহ ২ জন গ্রেফতার

গাইবান্ধা সংবাদদাতা: গাইবান্ধার...

বিস্তারিত
ফেসবুকে উস্কানিমূলক পোস্ট, ফেনীতে আটক ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: সামাজিক যোগাযোগ...

বিস্তারিত
রাজধানীতে ৫ কেজি আইস মাদকসহ গ্রেফতার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানী থেকে...

বিস্তারিত
সাবেক এলজিইডি মন্ত্রীর এপিএস ফুয়াদ গ্রেফতার

ফরিদপুর সংবাদদাতা: অর্থ পাচার মামলার...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *