চাঁটগার বেলা বিস্কুট 

প্রকাশিত: ০৩:২৫, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৩:২৫, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি জেলাতে কোনো না কোনো বিশেষ খাবারের ঐতিহ্য রয়েছে। কোনো কোনো জায়গায় এখনো স্বল্প পরিসরে হলেও সেসব ঐতিহ্য টিকে আছে। তেমনি এক ঐতিহ্যের নাম ‘চাঁটগার বেলা’। বেলা বিস্কুট কোনো অসাধারণ বিস্কুট তা নয়। বা হাল আমলের নানা রঙে-ঢঙে তৈরি বিস্কুটের কাছাকাছিও নেই এর শিল্পরূপ। কিন্তু এখনো টিকে আছে এর ঐতিহ্যটা। 

চট্টগ্রামের গনি বেকারিতে উৎপাদিত বেলা বিস্কুট মোগল, পর্তুগিজরা তখন খাবারের তালিকায় রাখত। এরপর ধীরে ধীরে চট্টগ্রামের মানুষের মধ্যেই ধোঁয়া ওঠা গরম দুধ চায়ে বেলা বিস্কুট চুবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস তৈরি হয়। ব্রিটিশ আমল থেকে ক্রমেই এর জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে চট্টগ্রামের বেলা বিস্কুট দেশের গণ্ডি পেরিয়ে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য কিংবা অস্ট্রেলিয়া, মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রপ্তানি শুরু হয়। প্রবাসে চট্টগ্রামবাসী তো আছেনই, অন্য দেশের প্রবাসীরাও খাচ্ছেন মজাদার সেই বিস্কুট।

গণি বেকারির হাত ধরে বেলা বিস্কুটের প্রচলন শুরু হলেও ধীরে ধীরে দেশের প্রায় সব বড় ও অটোমেটেড মেশিনেও তৈরি হচ্ছে বেলা বিস্কুট। তবে গণি বেকারি এখনো সেই প্রাচীন পদ্ধতিতে বিস্কুট তৈরি করে ঐতিহ্য ধরে রাখার চেষ্টা করছে। তাদের বিস্কুটের স্বাদও একদম আলাদা।

চট্টগ্রামের চন্দনপুরায় কলেজ রোডে গণি বেকারিতে গিয়ে খোঁজ পাওয়া গেল লাল খাঁ সুবেদারের বংশধরের। তাঁর নাম আবদুল্লাহ মোহাম্মদ এহতেশাম। ওয়াক্কফ দলিল অনুযায়ী বর্তমানে এই বেকারির কর্ণধার তিনি। তাঁর পূর্বপুরুষ আবদুল গণির নাম অনুসারে এই বেকারির নামকরণ হয়। গণি বেকারি মোড় হিসেবে পরিচিত এলাকাটি।

আবদুল্লাহ মোহাম্মদ এহতেশাম জানান, গণি বেকারি শোরুমের পেছনেই বিস্কুট তৈরি হয়। পুরনো নিয়ম ধরে রাখায় এই বেকারিতে বেলা বিস্কুট তৈরিতে অন্তত দুই দিন সময় লাগে। প্রথমে ময়দা, চিনি, লবণ, ভোজ্য তেল, ডালডা, গুঁড়া দুধ পানিতে মিশিয়ে খামির তৈরি করা হয়। এই খামিরে ইস্টের পরিবর্তে বিশেষ ধরনের মাওয়া দেওয়া হয়। মাওয়ার উপাদান প্রকাশ করতে চান না তাঁরা। খামিরে মাওয়া মিশিয়ে এক দিন রাখার পর তন্দুরে প্রথম এক দফায় এক থেকে দেড় ঘণ্টা ছেঁকা হয়। এরপর দ্বিতীয় দফায় আবারও ছেঁকে বেলা বিস্কুট তৈরি করা হয়। তন্দুরে গ্যাসের ব্যবহারের পাশাপাশি কয়লাও ব্যবহার হয়।  
গড়ে প্রতিদিন ২০০ থেকে ২৫০ প্যাকেট বা আট থেকে দশ হাজার পিস বেলা বিস্কুট তৈরি হয়। বাণিজ্যের চেয়ে ঐতিহ্য টিকিয়ে রাখার চেষ্টাতেই এমন আয়োজন তাঁদের।
 

MHS/KHR

এই বিভাগের আরো খবর

বিশ্বের দামি কফি

অনলাইন ডেস্ক: শরীরকে চাঙা করার জন্য...

বিস্তারিত
ঘরে তৈরি করুন মজাদার চিকেন পাই

অনলাইন ডেস্ক: বর্তমানে সবাই কম-বেশি...

বিস্তারিত
জবা ফুলের অবাক করা গুণ

অনলাইন ডেস্ক: সাধারণত শোভাবর্ধনকারী...

বিস্তারিত
সুস্বাদু দই-ইলিশের রেসিপি

ডেস্ক রিপোর্ট: ইলিশ ভাজা, ইলিশের...

বিস্তারিত
ত্বকের কালচে দাগ দূর করার উপায়

অনলাইন ডেস্ক: চেহারার যত্ন নিলেও...

বিস্তারিত
ঘরেই তৈরি করুন এয়ার ফ্রেশনার

অনলাইন ডেস্ক: ঘরের সতেজতা ধরে রাখে...

বিস্তারিত
চুলের যত্নে সেরা নারকেল তেল

ডেস্ক প্রতিবেদন: ত্বক ও চুলের যত্নে...

বিস্তারিত
নারকেলের সন্দেশের রেসিপি

অনলাইন ডেস্ক: নারকেল দিয়ে বিভিন্ন...

বিস্তারিত
১২ বছরে দৈনিক ৩০ মিনিট ঘুম !!

ফারুক হোসাইন: জাপানের দাইসুকি হরি...

বিস্তারিত
হজমের সমস্যার সমাধান  

ফারুক হোসাইন: আমাদের অনেকেরই হজমের...

বিস্তারিত
চিংড়ি পোলাও তৈরি করবেন যেভাবে

ডেস্ক রিপোর্ট: চিংড়ি পোলাও তৈরি করতে...

বিস্তারিত
চিকেন মিটবল বানাবেন যেভাবে- 

অনলাইন ডেস্ক: কিছু খাবার আছে যেগুলো...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *