ঢাকামুখী মানুষের ভোগান্তি 

প্রকাশিত: ১২:৩৫, ২৪ জুন ২০২১

আপডেট: ০৯:১২, ২৪ জুন ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় হঠাৎ করেই ঢাকার আশপাশের সাত জেলায় সোমবার লকডাউন জারি করে সরকার। পরদিন মঙ্গলবার থেকেই কোনো রকম ঘোষণা ছাড়াই ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের সড়ক, রেল ও নৌপথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এতে বিভিন্ন জেলা থেকে চিকিৎসা ও জরুরি প্রয়োজনে ঢাকায় আসা মানুষ বাড়ি ফিরতে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। 

এর প্রভাব পড়েছে ঢাকার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রবেশপথ গাবতলীতে। আমিনবাজার ব্রিজে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়ায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। ব্রিজের দুই পাশে আটকে দেওয়া হয়েছে যানবাহন। গাবতলীতে আটকে দেওয়া হচ্ছে ঢাকার অভ্যন্তরীণ গণপরিবহনসহ অন্যান্য পরিবহন। ওদিকে ব্রিজের অপর পাশে আমিনবাজারে আটকে দেওয়া হচ্ছে সাভারের বাসসহ অন্যান্য যানবাহন। 

বেশির ভাগই হেঁটে প্রবেশ করছেন ঢাকায়। তাঁদের মধ্যে অফিসগামী মানুষের সংখ্যাই বেশি, যাঁরা মূলত সাভারে থাকেন। এ ছাড়া রয়েছেন পোশাককর্মী। এর বাইরে অন্যান্য জেলা থেকে ঢাকার পথে আসছেন চিকিৎসা করাতে আসা রোগী, বেড়াতে গিয়ে আটকে পড়া ঢাকার বাসিন্দারা। এ ছাড়া বাইরের জেলাগুলো থেকে ভেঙে ভেঙে আসছেন অনেকে। এতে খরচ হচ্ছে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে অনেক বেশি। 

এছাড়া রাজধানীতে ঢোকার বাকি রাস্তাগুলোতে ঘুরে দেখা গেছে দূরপাল্লার বাস ছাড়া চলছে সব রকমের যানবাহন। ট্রাক, পিকআপ, মাইক্রোবাস যে যা পাচ্ছেন তাতে করেই আসছেন রাজধানীতে। বের হওয়ার ক্ষেত্রেও একই চিত্র। বাস চলাচল না করায় বিভিন্ন প্রয়োজনে রাজধানীতে আসা যাওয়া করতে হচ্ছে ভেঙে ভেঙে। ফলে গুনতে হচ্ছে বাড়তি ভাড়া, পোহাতে হচ্ছে ভোগান্তি।

লকডাউন জারিকৃত অঞ্চলগুলো থেকে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে অনেক কর্মকর্তা রয়েছেন যাদের কর্মস্থান ঢাকায় অবস্থিত। আবার রাজধানীতে থাকা অনেক সরকারি-বেসরকারি ও জরুরি সেবাদানকারী দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা রাজধানীর আশপাশের জেলাগুলোতে অফিস করেন। তারাও একই ঝামেলা পড়েন। তাদের সকলের প্রশ্ন কীভাবে তারা দৈনিক অফিস কার্যক্রম পরিচালনা করবে?

চলতি মাসে হঠাৎ রাজধানীতে করোনার অতি সংক্রমণশীল ভারতীয় ধরণ বেড়ে যাওয়ায় সারা দেশ থেকে ঢাকাকে আলাদা করার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। ঢাকার আশপাশের সাত জেলায় সোমবার লকডাউন জারি করে সরকার। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সোমবার (২১ জুন) জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, লকডাউন চলাকালে শুধু আইন-শৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিষেবা যেমন-কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, দমকল, নদীবন্দর, টেলিফোন ও ইন্টারনেট, গণমাধ্যম, বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মচারী ও যানবাহন এবং পণ্যবাহী ট্রাক/লরি এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।
 

MHS/PBC

এই বিভাগের আরো খবর

গাজীপুরে অপহৃত শিশু উদ্ধার, আটক ২

গাজীপুর সংবাদদাতা: গাজীপুরের...

বিস্তারিত
ফেসবুকে স্ট্যাটাসের জেরে শিক্ষার্থীকে হত্যা

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা: নারায়ণগঞ্জের...

বিস্তারিত
৬ বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ১৪৫

ডেস্ক প্রতিবেদন: কঠোর বিধিনিষেধেও...

বিস্তারিত
বান্দরবানে অস্ত্রসহ এক সন্ত্রাসী আটক

বান্দরবান সংবাদদাতা: বান্দরবানে...

বিস্তারিত
রাজবাড়ী শহর রক্ষা বাঁধের কাজ শেষ না হতেই ভাঙন

রাজবাড়ী সংবাদদাতা: রাজবাড়ীতে পদ্মা...

বিস্তারিত
পানছড়িতে পেয়ারা চাষে সফল এক কৃষক

খাগড়াছড়ি সংবাদদাতা: খাগড়াছড়ির...

বিস্তারিত
দিনে দু’বার ডুবে আগ্রাবাদ ও হালিশহর

মহসিন চৌধুরী: বৃষ্টি নামতে হয়না,...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *