ভারতের যত ভয়ঙ্কর রোড ট্রিপ

প্রকাশিত: ০৮:৪৯, ১৮ জুন ২০২১

আপডেট: ০৮:৪৯, ১৮ জুন ২০২১

অনলাইন ডেস্ক: খরস্রোতা নদীর দৃশ্য  সাথে উঁচু-নিচু পাহাড়ি পথ দিয়ে যেতে যেতে খরস্রোতা নদীর দৃশ্য দেখতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু যেখানে চলাফেরায় আছে ঝুঁকি ও ভয়, সেখানে কী কেউ যেতে চান? হ্যাঁ, চান। যেকোনো সময় তুষার, পাথর বা ভূমিধসের আশঙ্কাকে তুচ্ছ করে অনেক অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমী উঁচু-নিচু পাহাড়ি পথেই খুঁজে পান ভ্রমণের আনন্দ। ভারতে রোড ট্রিপ করার মতো এমন কয়েকটি জায়গা আছে। এ জায়গাগুলো নিয়েই আজকের আয়োজন-

খরদুং লা রোড
হিমালয়ের পশ্চিমাংশের এক দুর্গম অঞ্চলে অবস্থিত খরদুং লা রোড। এই রোড ১৭ হাজার ৫০০ ফুট উঁচু। রোডটি ‘বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু মোটরসাইকেল চলাচলকারী সড়ক’ নামে পরিচিত। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় খরদুং লা রোড থেকে প্রায়ই ব্রিটিশ সৈন্যরা গোলাবর্ষণ করতো। সে কারণে ঐতিহাসিকভাবে এই রাস্তা ব্যাপক জনপ্রিয়। সাম্প্রতিক সময়ে নতুন করে এর নির্মাণ কার্যক্রম শুরু হয় ১৯৭৬ সালে এবং শেষ হয় ১৯৮৮ সালে। বেশিরভাগ দর্শনার্থীরা এখানে রোড ট্রিপের জন্য ভ্রমণ করেন। তবে বিপদসংকুল রাস্তা হওয়ার কারণে এখানে রোড ট্রিপের সময় বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি। বিশেষ করে ভারী বৃষ্টিপাত, তুষারপাত ও ভূমিধসের সময় এখানে ভ্রমণ না করাই ভালো। 

জোজি লা রোড
ভারতের জম্মু-কাশ্মিরের শ্রীনগর শহর থেকে ১০০ কিলোমিটার ও কাশ্মিরের শ্যেনমার্গ থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে লাদাখ এবং কাশ্মিরের মধ্যে সংযোগ স্থাপনকারী সড়কের নাম জোজি লা রোড। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১১ হাজার ৫৭৫ ফুট উঁচু একটি পাহাড়ি রাস্তা এটি। ভারতের অন্যতম ভয়ংকর স্থান। স্থানীয়ভাবে এই সড়ক ‘জোজিলা পাস’ নামে পরিচিত। একেই সমুদ্রের অনেক উপরে, তার ওপর সরু রাস্তাও। ভারী বৃষ্টিপাত হলে এখানে কাদা জমে যায় এবং গাড়ির চাকা কাদায় আটকে যায়। প্রায়ই এখানে ধ্বস নামতে দেখা যায় এবং বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে। এই সড়কে ভেড়া চরে বেড়ায়। রোড ট্রিপের সময় কখনো যদি আপনার গাড়ি ভেড়ার পালের সামনে পড়ে যায়, তাহলে গাড়ির ভেতরে বসে থাকা ছাড়া কিছুই করার থাকে না।

রোথাং পাস
ভারতের আরেকটি ভয়ংকর রাস্তা রোথাং পাস। লেহ মানালি হাইওয়ের কাছেই অবস্থিত এই রাস্তা। পাহাড়ি ঝরণা ও নদী পার হয়ে এই রাস্তায় দর্শনার্থীদের আসতে হয়। পাহাড়ি রাস্তায় মোটরসাইকেল ট্রেকিং ও রোড ট্রিপ করার জন্য অনেকেই এখানে আসেন। এই পাহাড়ি রাস্তা ৩৯৭৮ মিটার উঁচু। এখানে চলাফেরা করা ঝুঁকিপূর্ণ। বর্ষাকালে এখানে ভূমিধ্বসসহ আরও নানা ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দেয়। তাই বর্ষাকালে এখানে অ্যাডভেঞ্চার না করাই ভালো।

নাথু লা
চীন-ভারত সীমান্ত অঞ্চলে নাথু লা অবস্থিত। উত্তর সিকিমের যাওয়ার জন্য পাহাড়ি গিরিপথটি অনেকেই ব্যবহার করেন। নাথু লা অঞ্চলটি ভারতের অন্যতম ভয়ংকর ও উঁচু জায়গা। এর উচ্চতা ৪৩১০ মিটার। এখানে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে। তারপরেও অনেক দর্শনার্থী এখানে এসে মোটরসাইকেল ট্রেকিং ও রোড ট্রেকিং করেন।

AR/KHR

এই বিভাগের আরো খবর

মাংসের টক-ঝাল-মিষ্টি আচার

অনলাইন ডেস্ক: আচার খেতে কে না পছন্দ...

বিস্তারিত
কলিজার বারবিকিউ কাবাব তৈরির রেসিপি

অনলাইন ডেস্ক: গরু বা খাসির কলিজা খেতে...

বিস্তারিত
যেসব খাবার ফ্রিজে রাখা যাবে না

অনলাইন ডেস্ক: খাবার সতেজ রাখার জন্য...

বিস্তারিত
কলিজার সিঙ্গারা বানাবেন যেভাবে

অনলাইন ডেস্ক: মজাদার কলিজার সিঙ্গারা...

বিস্তারিত
গরুর মাংসের মুঠো কাবাব 

অনলাইন ডেস্ক: ঈদে সুস্বাদু সব কাবাব...

বিস্তারিত
ব্রণ সারাতে করণীয় 

অনলাইন ডেস্ক: তৈলাক্ত ত্বক ব্রণ হওয়ার...

বিস্তারিত
মজাদার মাটন সুখা

অনলাইন ডেস্ক: আসছে কোরবানির ঈদ।...

বিস্তারিত
গরুর মাংসের কোরমা 

অনলাইন ডেস্ক: কোরবানীর ঈদে মাংসের পদই...

বিস্তারিত
আঁচিল দূর করার প্রাকৃতিক উপায়

অনলাইন ডেস্ক: আঁচিল মূলত এক ধরনের...

বিস্তারিত
বাসায় রাঁধেন মেজবানি মাংস 

অনলাইন ডেস্ক: অনেকে মেজবানি মাংস খুব...

বিস্তারিত
ঝটপট তৈরি করুন চিংড়ি স্যান্ডউইচ

অনলাইন ডেস্ক: চিংড়ি দিয়ে তৈরি যেকোনো...

বিস্তারিত
দুধের সাথে রসুন খাওয়ার উপকারিতা

অনলাইন ডেস্ক: রসুনের স্বাস্থ্য...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *