টিক্কা খানের আহবানে সাড়া দেয়নি বাঙালি  

প্রকাশিত: ১০:২২, ১০ জুন ২০২১

আপডেট: ১১:১৮, ১০ জুন ২০২১

কাজী বাপ্পা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর বছর ছিল ২০২০। তাঁর শততম জন্মবার্ষিকীর দিন, ১৭ই মার্চ থেকে শুরু হয়েছে মুজিববর্ষ উদযাপন, যা চলছে এই স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর বছরও। স্বাধীন বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু একাত্মা। তিনিই একাত্তরের ২৬শে মার্চ স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। তাঁর ডাকেই মানুষ স্বাধীনতার জন্য সশস্ত্র যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল। শেখ মুজিবুর রহমানের বিরল ঐতিহাসিক নেতৃত্বের সেই উত্তাল আন্দোলন ও সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলো নিয়ে মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর বছরজুড়ে বৈশাখী সংবাদের বিশেষ ধারাবাহিক আয়োজন- যাঁর ডাকে বাংলাদেশ। 

একাত্তর সালের ২৬শে মার্চে শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণা করা বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ শুরুর প্রাথমিক পর্যায়ে দখলদার পাকিস্তানী সেনাবাহিনী স্বাধীনতাকামী মুক্তিযোদ্ধাদের হাত থেকে নিজেদের হাতে বিভিন্ন এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিতে থাকে। কিন্তু মে মাসের শেষ থেকে চিত্র পাল্টাতে শুরু করে। ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকার দখল নেওয়া শুরু করে মুক্তিযোদ্ধারা। 

১৯৭১ সালের ১০ই জুন কলকাতা থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের পরিচালিত স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সংবাদে বলা হয়, “ঢাকা শহরে গেরিলাদল নিউমার্কেটে ও ওয়াপদা ভবনের সামনে গ্রেনেড বিষ্ফোরণ ঘটায়। নিউমার্কেটের সব দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়, ওয়াপদার কাজকর্ম বন্ধ হয়ে যায়। মুক্তিবাহিনী কুমিল্লার কসবা, রাজাপুর এবং সিলেটের জয়ন্তিপুর সীমান্ত ফাঁড়ির উপর আক্রমণ চালায়। ২ নম্বর সেক্টর থেকে মুক্তিবাহিনী তলুয়াপাড়া ফেরীঘাটে পাকবাহিনীর ওপর এ্যম্বুশ করে নৌকা ডুবিয়ে দিয়ে ২০জন পাকসেনাকে হত্যা করে।” (সূত্রঃ স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র)

ঢাকায় নিয়োগ দেয়া দখলদার পাকিস্তানী সরকারের গভর্নর জেনারেল টিক্কা খানের সাক্ষাৎকার একাত্তরের এদিন ছাপা হয় পাকিস্তান অবজারভারে। বাংলাদেশে পাকিস্তানের গণহত্যা পরিকল্পনা বাস্তবায়নের নেতৃত্বদানকারী টিক্কা খান বলেন, “যেসব নাগরিক ছাত্র, শ্রমিক, ব্যবসায়ী, শিল্পপতি, সরকারী কর্মচারী, সশস্ত্র বাহিনী ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্য, রাজনৈতিক কর্মী ও নেতা সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে চলে গিয়েছিলেন এবং স্বদেশে ফিরে আসতে চান তাদের প্রতি সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করা হইয়াছে। সরকার চান পূর্ব পাকিস্তানীরা ফিরে আসুক।” (সূত্রঃ ১২ জুন, ১৯৭১; পাকিস্তান অবজারভার)

প্রকৃতপক্ষে নরঘাতকদের এমন আহ্বানকে বিশ্বাস করেনি স্বাধীনতার জন্য মুক্তিযুদ্ধরত বাংলাদেশের মানুষ। 
 

HIB/PBC

এই বিভাগের আরো খবর

কর্মীদের সাথে আত্মিক সম্পর্ক ছিলো বঙ্গবন্ধুর’

বিউটি সমাদ্দার: সব ভেদাভেদ ভুলে দেশের...

বিস্তারিত
পাকিস্তানি তাণ্ডব দেখতে ঢাকায় ব্রিটিশ এমপিরা

কাজী বাপ্পা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ...

বিস্তারিত
‘সীমাহীন সাহসী ছিলেন বঙ্গবন্ধু’ 

গোলাম মোর্শেদ: সব ভেদাভেদ ভুলে দেশের...

বিস্তারিত
‘বঙ্গবন্ধুর গুণাবলী মুগ্ধ করেছিলো’

বিউটি সমাদ্দার: সব ভেদাভেদ ভুলে দেশের...

বিস্তারিত
নিদারুণ অবস্থায় দখলদার বাহিনী

কাজী বাপ্পা:  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু...

বিস্তারিত
‘বঙ্গবন্ধুর টানে আওয়ামী লীগে’

বিউটি সমাদ্দার: সব ভেদাভেদ ভুলে দেশের...

বিস্তারিত
ভারতের লোকসভায় বাংলাদেশি শরণার্থী নিয়ে আলোচনা

কাজী বাপ্পা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ...

বিস্তারিত
শরনার্থীদের সহায়তার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

কাজী বাপ্পা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *