মোংলায় গো-খাদ্যের অভাব, দুশ্চিন্তায় খামারীরা

প্রকাশিত: ০৮:৪৩, ১২ এপ্রিল ২০২১

আপডেট: ০৯:৫৭, ১২ এপ্রিল ২০২১

মোংলা সংবাদদাতা: মোংলার উপকূলীয় এলাকায় সুপেয় পানি ও গো-খাদ্যের সংকট দেখা দিয়েছে। বাধ্য হয়ে বাজার থেকে পশুর খাদ্য কিনছেন খামারীরা। কিন্তু করোনাকালে গো-খাদ্যের দামও গেছে বেড়ে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন খামারীরা। ঠিকমতো পশুর চিকিৎসাও হচ্ছে না। এ অবস্থা চলতে থাকলে এ অঞ্চলে গবাদি পশু পালন বন্ধের আশংকা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশগত কারণে মোংলাসহ আশপাশের এলাকায় পানিতে লবণাক্ততা বেড়েছে। ফলে দেখা দিয়েছে, সুপেয় পানির অভাব। এখানকার জমিতে কাঁচা ঘাসও হচ্ছে না। তাই খামারীদের পশুর জন্য খাদ্য কিনতে হচ্ছে বাজার থেকে।

করোনা পরিস্থিতিতে গো খাদ্যর দামও বেড়েছে কয়েকগুন। পশুর চিকিৎসা সেবাও মিলছে না সময়মতো। ক্ষতির মুখে পড়েছেন খামারীরা।

লবনাক্ত জমিতে ঘাস উৎপাদন করা গেলে গো খাদ্যের অভাব দূর হবে। এজন্য সরকারি-বেসরকারী সংস্থার সহযোগিতা চাইলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি।

এদিকে, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা জানালেন, তাদের সীমাবদ্ধতার কথা। তবে এখন থেকে বিনা খরচে পশুর চিকিৎসা নিশ্চিত করার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তরের হিসাবে, বর্তমানে মোংলায় প্রতিষ্ঠিত খামার রয়েছে অন্তত ৩০টি। এসব খামারে ১৬ হাজার গরু, ২০ হাজার ছাগল, ১০ হাজার ভেড়া ও এক হাজার মহিষ পালন করা হচ্ছে। 

MNU/MSI

এই বিভাগের আরো খবর

ঢাকা-রাজশাহী রুটে কাল থেকে বিমানের ফ্লাইট

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী-ঢাকা আকাশ...

বিস্তারিত
রাজশাহীতে শুরু হলো আম পাড়া

রাজশাহী সংবাদদাতা:  বাংলা পঞ্জিকার...

বিস্তারিত
পটুয়াখালীতে দোকানিকে কুপিয়ে হত্যা

পটুয়াখালী সংবাদদাতাঃ পটুয়াখালীর...

বিস্তারিত
খুলনায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার

খুলনা সংবাদদাতাঃ খুলনায় কলেজ ছাত্র...

বিস্তারিত
বাবার পর ছেলেকেও বাঘে খেলো

সাতক্ষীরা সংবাদদাতা: সুন্দরবনে...

বিস্তারিত
আজও রাজধানী ছাড়ছে মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঈদের পরের দিনেও...

বিস্তারিত
বিলুপ্তির পথে বগুড়ার তালপাতার পাখা

বগুড়া সংবাদদাতা: করোনা অতিমারিতে...

বিস্তারিত
নড়াইলের সরকারি হ্যাচারিটি এখন গোচারণ ভূমি

নড়াইল সংবাদদাতা: প্রায় দুই যুগ ধরে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *