খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল

প্রকাশিত: ১১:২০, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

আপডেট: ১১:২০, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

পঞ্চগড় প্রতিনিধি: অবকাঠামো, চিকিৎসক সংকটসহ জনবলের অভাবে খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল। ফলে কাঙ্খিত চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন জেলার কয়েক লাখ মানুষ। আর  বাধ্য হয়ে অনেকে চিকিৎসা পেতে রংপুর, দিনাজপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে যাচ্ছেন।

ষাটের দশকে পঞ্চগড় মহাকুমায় নির্মিত হয় এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি। ১৯৮৪ সালে জেলা ঘোষণার পর তা উন্নত হয় ৫০ শয্যার সদর হাসপাতালে। ২০০৫ সালে, তা ১০০ শয্যায় উন্নীত হলে পরিণত হয় আধুনিক সদর হাসপাতালে।

নামের বেলায় এর কয়েক ধাপ উন্নতি ঘটলেও অবকাঠামোর দৃশ্যত কোন উন্নয়ন হয়নি। চিকিৎসকসহ জনবল সংকটে বাড়তে থাকে অব্যবস্থাপনা। সরকারি হাসপাতাল হলেও জেলা শহরে প্রাইভেট প্র্যাকটিসের সুযোগ কম থাকায় নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকরা এখানে এসে বেশিদিন থাকতে চান না।

জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রের এ হাসপাতালে প্রতিদিন বহির্বিভাগে ৩ থেকে ৪শ’ রোগী সেবা নিয়ে থাকেন। আর ভর্তি থাকে প্রায় দেড়শ’ রোগী। প্রায় সব সময়ই ৪০ থেকে ৫০ জন রোগীকে মেঝেতে থেকে চিকিৎসা নিতে হয়।

হাসপাতালটিতে ৩৬ জন চিকিৎসকের জায়গায় রয়েছে মাত্র ১৪ জন। এছাড়া প্যাথলজি, রেডিওলজি, মেডিক্যাল অফিসার, সহকারি সার্জন, সিনিয়র স্টাফ নার্স পদেও রয়েছে শূন্যতা। ফলে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়।

অন্যদিকে প্রয়োজনীয় টেকনিশিয়ান আর চিকিৎসকের অভাবে অকেজো হয়ে গেছে কোটি টাকার এক্স-রে ও আল্ট্রাসনোগ্রাফি মেশিন। ফলে বেশি টাকা দিয়ে নিুমানের বে-সরকারি ডায়াগনেস্টিক সেন্টারগুলো থেকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে হচ্ছে রোগীর।

ডা. পীতাম্বর রায় জানান, ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই পঞ্চগড় জেলায় যুক্ত হয়েছে ৩৬টি ছিটমহলের প্রায় ২০ হাজার মানুষ। তাই এই বিশাল জনগোষ্ঠী চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন তারা।

এলাকার মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে সরকারের দৃষ্টি আর্কষনের আবেদন জানান এলাকাবাসী।
 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *