আজ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস

প্রকাশিত: ০৬:৪৩, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

আপডেট: ০৬:৪৩, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দেশে ৭০ লাখেরও বেশি মানুষ বিষণ্ণতা জনিত মানসিক সমস্যায় ভুগছেন। আর বিশ্বে এ সংখ্যা প্রায় ৩০ কোটি। ৩০ থেকে ৪০ বছর বয়সে বিষন্নতাজনিত মানসিক সমস্যা দেখা দেয়।


 বংশগত, সামাজিক, একাকিত্ব, বেকারত্ব, দারিদ্রতা ও নেতিবাচক মানসিকতার কারণেই এ সমস্যা বাড়ছে বলে জানান চিকিৎসকরা। এ বছর বিষণ্ণতাকে প্রধান প্রতিপাদ্য করে পালিত হচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস।

প্রতি বছর বিশ্বে বাড়ছে বিষণ্ণতা জনিত মানসিক রোগীর সংখ্যা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেবে বিশ্বে প্রায় ৩০ কোটি মানুষ এ ধরনের মানসিক রোগে ভূগছেন।

 বাংলাদেশে এ সংখ্যা মোট জনসংখ্যার চার দশমিক ৬ শতাংশ অর্থাৎ ৭৩ লাখেরও বেশি। শিশুরাও বাদ যাচ্ছে না এই মানসিক রোগ থেকে। পুরুষের চেয়ে মেয়েরাই বেশি আক্রান্ত হন মানসিক রোগে।  

দারিদ্র্যতা, পারিবারিক কলহ, একাকিত্ব, মাদকাসক্তি, হতাশা থেকে বিষণ্ণতা  সৃষ্টি। এই সমস্যা পরিবারের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলছে বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

চিকিৎসকরা বলছেন বিষণ্ণতা   একটি আবেগজনিত মানসিক সমস্যা। দুঃখবোধের মত সাধারণ আবেগ যখন অযৌক্তিক, তীব্র ও দীর্ঘ মেয়াদে কোন ব্যক্তিকে ঘিরে রাখে, তখনি সৃষ্টি হয় বিষণ্ণতা । এ সমস্যা থেকে বাঁচতে সময়মত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়ার পরামর্শ এই চিকিৎসকের।

বিষণ্ণতা কমাতে বেশি বেশি প্রচারণার দিকে জোর দিচ্ছে সরকার। প্রত্যন্ত অঞ্চলে কমিউনিটি ক্লিনিক ও হাসপাতালগুলোতে রাখা হয়েছে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।

প্রতি ১০ জনে একজন করে ভুগছেন বিষণ্ণতায়। আশঙ্কাজনকহারে বাড়া এ ধরনের মানসিক সমস্যা থেকে উত্তরণে সবার আগে সচেতনার প্রয়োজন বলে মনে করেন চিকিৎসকরা।  

 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *