সীমার মধ্যে অসীমের হাতছানি থাকে !

প্রকাশিত: ১১:৪৬, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

আপডেট: ১১:৪৬, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

শায়লা সিমি টুকটুক                                                                                                                     । অটিজম লাইফস্টাইল কনসালট্যান্ট ও অটিজম এক্টিভিস্ট                                                     shailasimi@gmail.com

[আজ ২ ফেব্রুয়ারি-- বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস। এ উপলক্ষে লেখাটি পত্রস্থ করা হলো।-- বিভাগীয় সম্পাদক]

আমেরিকান চিকিৎসক লিও ক্যানার অটিজম শব্দের প্রবর্তক। গ্রিক আটো শব্দ থেকে অটিজম এসেছে। অটিজম, আটো-ইজম, অর্থাৎ- স্বতন্ত্র চিন্তা ও ক্রিয়াশীলতার প্রতিফলন! অটিজম ব্যাধি নয় বরং ভিন্ন একটি ক্রিয়াশীল ও মানসিক বিকাশজনিত অবস্থার আলাদা রূপ!

একটি স্বতন্ত্র অনুশীলন বা মতাদর্শকে যদি ধরি, সেখানে দুটি ভিন্ন রূপের কল্পনা এসে যায়-- প্রথমটি অভিজ্ঞতাপ্রসূত একটি মতাদর্শ, অন্যটি জন্মগতভাবে প্রাপ্ত ! অবশ্যই আমরা জানি যে প্রকৃতি একটি নিজস্ব নিয়মে চলে, এবং সর্বোৎকৃষ্ট পথ সেটাই! আমরা প্রকৃতি থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছি; শারীরিক ও মানুষিক বিকৃতাবস্থার সম্মুখীন হতে শুরু করেছি! প্রকৃতিগত ভাবে যদি কেউ কোনো আচরণ অথবা জ্ঞানপ্রাপ্ত হয় সে মানুষকে আলাদা চোখে দেখা হয়। আলাদা করে দেখার কারণ হলো, এ বিষয়ের কারো আর কোনো হাত নাই! ভাবিনা যে, এ বিষয়ে আসলে কার কর্তৃত্ব আছে! এ ক্ষেত্রে মনস্তাত্বিক পর্যালোচনা প্রয়োজন।

পৃথিবীতে বস্তুর সঙ্গে জীবের অথবা এক জীবের সঙ্গে অন্য জীবের যে কার্যকারণ সম্পর্ক, যোগ এ বিষয়ে আমাদের দৃষ্টি উপরি-আবরণের উপর পড়ে আছে, গভীরে প্রবেশ করতে পারছে না! পদ্মফুলের সৌন্দর্য দেখ্‌ অথবা ভাবি, বাহ সুন্দর; ঘ্রাণ নাই কেন ! আমাদের ভাবনা এ পর্যন্ত। অথচ পদ্মহেম ধাম; যেখানে দলগতভাবে একটি মতাদর্শ একত্রে বিস্তার লাভ করে এবং ঠিক পদ্মের প্রকারে একই মূলের থেকে উৎপত্তি লাভ করে, শোভা বৃদ্ধি করে !

ইকোলজি কী? জানলে আমরা পরিবেশের প্রতি ভিন্ন আচরণ প্রদর্শন করতাম! প্রকৃতি ও পৃথিবীর গর্ভে অবস্থিত সকল জীব, জড় এবং এদের অভ্যন্তরীণ সম্পর্কের ভিত্তি জানতে পারাই জ্ঞানপ্রাপ্ত হওয়া! একটি উদহারণ দিয়ে বলি -- যদি বাধাপ্রাপ্ত না হয়, সূর্য স্বাভাবিকভাবে একটি জায়গায় আলো ফেলবে। সেখানে যদি দেয়াল ওঠে, তাহলে অপর পার্শ্বে অন্ধকার হয়ে যায়; এবং সেই স্থানকে আলোকিত করতে আমাদের প্রয়োজন হতে পারে কৃত্রিম আলোর; শরীরে ব্যাধি জন্ম দিয়ে ঔষধ সেবনের মতো! অথচ স্বাভাবিক জীবনে থাকলে হয়তো এ ব্যাধিতে ভুগতে হতো না !

আধুনিক জীবন-যাপনের প্রভাব শরীর ও মস্তিস্ককে বিষগ্রস্ত করে-- এটাই অটিজম বা ব্রেন ডেভেলপমেন্ট ডিসঅর্ডারের হেতু। আরো কিছু কারণ নিয়ে আলোচনা চলছে, আবার সেখানে এখনো কিছু ভিন্নমতও রয়েছে। এসব সম্পর্কে বারান্তরে বিস্তারিত আলোচনার আশা রাখি। 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *