ফেরিতে কোটি টাকার ফগলাইট, ঘন কুয়াশায় থাকে বন্ধ

প্রকাশিত: ২৫-০১-২০২৩ ০৮:২৩

আপডেট: ২৫-০১-২০২৩ ০৯:৩০

রাজবাড়ী সংবাদদাতা: প্রযুক্তির উন্নতি ঘটলেও এখনও শীত মৌসুমে ঘন কুয়াশায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় প্রায়ই ফেরী চলাচল বন্ধ থাকে। মাঝ নদীতে ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ফেরী আটকে থাকার ঘটনাও ঘটছে। ১০টি ফেরিতে ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘ফগলাইট’ স্থাপন করা হলেও কোনো কাজে লাগেনি। রাডার ও জিপিএস প্রযুক্তি ব্যবহার করে কুয়াশার মধ্যেও ফেরী চলাচল সচল রাখা যায় বলে অভিমত সংশ্লিষ্টদের। 

ঘন কুয়াশার কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে প্রতিনিয়ত ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। শীত মৌসুমের অধিকাংশ সময় ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ থাকে। শীত ও কুয়াশার মধ্যে মাঝ নদীতে আটকে থেকে গাড়ির চালক ও যাত্রীরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। 

দুর্ভোগ কমাতে ২০১৫ সালে প্রায় সাত কোটি টাকা ব্যয়ে ১০টি ফেরিতে উন্নত প্রযুক্তির ফগলাইট লাগানো হয়। দুর্নীতির কারণে নিম্নমানের ফগ লাইট কেনায় তা কোন কাজে আসেনি। এরপর কুয়াশাকালীন সময়ে ফেরি সচল রাখার কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি কর্তৃপক্ষ। ঘাট ব্যবহারকারীরা বলছেন, এই যুগে কার্যকরী ফগলাইট স্থাপন করে সংকট মোকাবিলা অথবা জিপিএস সিস্টেমে ডিভাইজ ব্যবহার করেও ফেরি সার্ভিস সচল রাখা সম্ভব।

বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তারা জানান, নদীতে চলাচলকারী সব নৌযান জিপিএস অথবা রাডার ব্যবহার করে না। তাই দুর্ঘটনা এড়াতেই কুয়াশাকালীন সময়ে ফেরি সার্ভিস বন্ধ রাখা হয়। উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে কুয়াশায় ফেরি চালু রাখার দাবি চলাচলকারীদের।

kanij/sharif