প্রতিরক্ষা চুক্তি রক্ত দিয়ে প্রতিহত করবে জনগন-রিজভী

প্রকাশিত: ০৯:০৪, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

আপডেট: ০৯:০৪, ০৮ অক্টোবর ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ভারতের সঙ্গে কোনো ধরনের প্রতিরক্ষা চুক্তি বা সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর দেশের জন্য বিপজ্জনক হবে এবং এটি হলে জনগন তা রক্ত দিয়ে প্রতিহত করবে। শুক্রবার সকালে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক ব্রিফিংয়ে একথা বলেন।
তিনি বলেন, “ভারত প্রস্তাবিত ২৫ বছর মেয়াদি প্রতিরক্ষা চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশে তাদের মিলিটারি হার্ডওয়্যার অর্থাৎ সমরাস্ত্র বিক্রি করতে চায়। ভারতের কাছ থেকে সামরিক হার্ডওয়্যার আমদানি করলে আমাদের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হবে ভারতীয় প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার একটা ‘এক্সটেনশন’ মাত্র।
“এই চুক্তিতে অস্ত্র কেনার শর্তে বাংলাদেশকে ভারত ৫০ কোটি মার্কিন ডলার লাইন অফ ক্রেডিট দেবে। ওই অর্থ দিয়েই ভারত থেকে অস্ত্র কিনতে হবে। এর অর্থ হচ্ছে, কৈ মাছের তেল দিয়ে কৈ ভাজার ভারতীয় চানক্যনীতি।”
এ ধরনের প্রতিরক্ষা চুক্তি হলে ‘বাংলাদেশের মানুষ তা রক্ত দিয়ে’ প্রতিহত করবে বলে মন্তব্য করেন রিজভী।
আগামী ৭ এপ্রিল তিন দিনের সফরে দিল্লী যাওয়ার কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। সেখানে তার উপস্থিতিতে দুদেশের মধ্যে বেশ কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষর হবে বলে গণমাধ্যমে খবর এসেছে।
রুহুল কবির রিজভী বলেন, অতীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারত সফরে গিয়ে ৫০টি চুক্তি করে এসেছেন, যার কোনোটিই জাতীয় সংসদে বা জনগণের সামনে প্রকাশ করেননি। ওই সব ‘গোপন’ চুক্তিতে কী লেখা আছে, দেশের মানুষ তা আজও জানে না।
ভারত নিজেই সামরিক সরঞ্জাম আমদানি করে জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, সেক্ষেত্রে ভারত কী ধরনের সমরাস্ত্র বাংলাদেশে রপ্তানি করবে, সেটি এখন বড় প্রশ্ন।
রিজভী বলেন, “আসলে এর পেছনে যে অন্য কোনো উদ্দেশ্য আছে, তা দেশের মানুষ ভালোভাবেই উপলব্ধি করছে। দেশের স্বাধীনতা ও নিরাপত্তাকে ভারতের জিম্মায় সঁপে দিতে আওয়ামী শাসকগোষ্ঠী জবরদস্তিমূলকভাবে ক্ষমতা করতলগত করে রেখেছে।”
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের জবাবে রিজভী বলেন, ‘ভারতের সঙ্গে অতীতে দেশবিরোধী ট্রানজিট, করিডর ছাড়াও আপনারা আরও গোপনীয় ৫০টি চুক্তি সম্পাদন করেছিলেন, যেটি আজও জনগণ জানতে পারেনি। তবে দেশবাসী মনে করে, যেনতেনভাবে ক্ষমতা আঁকড়ে রাখতে দেশবিরোধী এতসব কর্মতৎপরতা দেখাচ্ছে বর্তমান শাসকগোষ্ঠী।’
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে দলের কেন্দ্রীয় নেতা তৈমুর আলম খন্দকার, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, শাহিন শওকত ও মনির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
ভারতের আবদার রক্ষাই সরকারের দায়িত্ব: গয়েশ্বর
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন সফরে অন্য কোনো নতুন চুক্তির আগে তিস্তা চুক্তি সম্পাদনের জন্য ভারতকে শর্ত দেওয়ার দাবি করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক স্মরণসভায় গয়েশ্বর রায় এসব কথা বলেন। বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের মৃত্যুবার্ষিকীতে স্বাধীনতা ফোরাম নামের একটি সংগঠন এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
ভারতের দিকে ইঙ্গিত করে গয়েশ্বর রায় বলেন,বিনা ভোটে নির্বাচিত সরকার যাদের করুণায় ক্ষমতায় আছে, তাদের সব আবদার রক্ষা করাই এই সরকারের দায়িত্ব। সে কারণে সরকার স্পষ্ট কিছু বলতে পারছে না।
গয়েশ্বর রায় দাবি করেন, বঙ্গোপসাগরের কর্তৃত্ব নিয়ে সরকারের সঙ্গে ভারতের মনোমালিন্য হয়েছে। বাংলাদেশ সাবমেরিন কার বিরুদ্ধে ব্যবহার করবে, এমন প্রশ্ন করলে জবাব, সবার বিরুদ্ধে আবার কারও বিরুদ্ধে না। অর্থাৎ যে আক্রমণ করবে তার বিরুদ্ধে। এই সহজ কথা সরকার বলতে পারছে না। কারণ তারা প্রভুকে সামলাতে পারছে না।
তিস্তা চুক্তির অপেক্ষায় মানুষ: আমীর খসরু
জাতীয় প্রেসক্লাবে আরেক আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, পত্র-পত্রিকায় ভারতের সঙ্গে সামরিক চুক্তির কথা লেখা হচ্ছে। কিন্তু এখনো সরকার কিছু জানায়নি। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে না কী চুক্তি হচ্ছে। কিন্তু মানুষ অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে তিস্তা চুক্তির জন্য।
বিএনপির এই নেতা অভিযোগ করেন, সরকার আবারও বিএনপিকে বাইরে রেখে একতরফা নির্বাচন করতে চায়। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, আবার ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন করে কেউ পার পাবে ভাবলে ভুল করবে। নিবন্ধন নিয়ে বিএনপির কোনো চিন্তা নেই।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

ইসিতে বিএনপির অভিযোগ দায়ের

নিজস্ব প্রতিবদক: নির্বাচনী আচরণবিধি...

বিস্তারিত
বিএনপি ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করছে: তাপস

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা দক্ষিণ সিটি...

বিস্তারিত
সংঘর্ষের ঘটনা নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর গোপীবাগে...

বিস্তারিত
ঢাকাকে বাসযোগ্য করতে সব করবো: ইশরাক

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকাকে বাসযোগ্য...

বিস্তারিত
নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার আহ্বান আতিকের

নিজস্ব প্রতিবেদক: উন্নয়নের ধারা...

বিস্তারিত
এখন পর্যন্ত ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু: সিইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপির শঙ্কা...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *