ঢাকা, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৪

2018-02-24

, ৮ জমাদিউল সানি ১৪৩৯

ফেডের মুদ্রানীতি প্রণয়নের সিদ্ধান্তে উদ্বিগ্ন বিনিয়োগকারীরা

প্রকাশিত: ১১:৪২ , ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ আপডেট: ১১:৪২ , ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

ডেস্ক রিপোর্ট: ফেডের মুদ্রানীতি প্রণয়নের সিদ্ধান্তে উদ্বেগে বিনিয়োগকারীরা। রয়টার্স জানিয়েছে , গতকাল বুধবার  শুরু হয়েছে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের (ফেড) নীতিনির্ধারণী বৈঠক । এবারের   বৈঠকের মধ্য দিয়ে সুদের হার বৃদ্ধি ও দীর্ঘদিন ধরে চলমান অর্থনৈতিক প্রণোদনা কর্মসূচির সমাপ্তি ঘটবে-এমনটাই প্রত্যাশা বিনিয়োগকারীদের ।

দেশটিতে মূল্যস্ফীতির লক্ষ্য পূরণ না হওয়ায় ফেড প্রত্যাশা অনুযায়ী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে কিনা, তা নিয়ে সংশয়ে রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। বিশেষ করে এশিয়ার বিনিয়োগকারীদের মধ্যে এ প্রবণতা বেশি ।

গত আগস্টে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি সত্ত্বেও মূল্যস্ফীতিতে খুব একটা প্রভাব পড়েনি। এ অবস্থায় মূল্যস্ফীতির সাম্প্রতিক প্রবণতাকে কেন্দ্রীয় ব্যাংক কীভাবে দেখবে, সে বিষয়টি সতর্কভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বিনিয়োগকারীরা। কারণ চলতি বছর তৃতীয়বারের মতো সুদের হার বাড়ানো হবে কিনা, তা নির্ভর করছে মূল্যস্ফীতি নিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মনোভাবের ওপর।

পুনরায় সুদহার বাড়ানোর ক্ষেত্রে এর প্রভাব সম্পর্কে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে আরও খতিয়ে দেখা প্রয়োজন বলে মনে করছেন, ফেডের মুদ্রা নীতিমালা নির্ধারণ কমিটির কয়েকজন।

আবার কেউ কেউ মত প্রকাশ করেছেন, দীর্ঘদিন সুদের হার কম রাখা হলে তা আর্থিক খাতে ঝুঁকি সৃষ্টি করবে।

এদিকে শুধু মূল্যস্ফীতি নয়, যুক্তরাষ্ট্রে একের পর এক আঘাত হানা প্রাকৃতিক দুর্যোগও সুদ বৃদ্ধির সিদ্ধান্তকে প্রভাবিত করতে পারে বলে ধারণা বিশিষ্টজনদের। এ পরিস্থিতিতে ফেডের সিদ্ধান্ত নিয়ে শঙ্কায়  বিনিয়োগকারীরা।

অ্যাক্সি  ট্রেডারের প্রধান বাজার কৌশলী  গ্রেগ ম্যাককেনা এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘বৈঠকে অতিবিস্ময়কর কোনো সিদ্ধান্ত হবে না। তবে ঝুঁকি তো রয়েছেই।’

ফেডের সিদ্ধান্ত নিয়ে বিনিয়োগকারীদের এ উদ্বেগের প্রভাব পড়েছে এশিয়ার শেয়ারবাজারে। টোকিও শেয়ারবাজার গত মঙ্গলবার চাঙ্গা থাকলেও গতকাল সকালের লেনদেনে তা অপরিবর্তিত দেখা গেছে। এছাড়া সাংহাইয়ের শেয়ারসূচক দশমিক এক শতাংশ, সিডনির দশমিক তিন শতাংশ এবং সিঙ্গাপুর ও সিউলের স্টক এক্সচেঞ্জে সূচকে দশমিক এক শতাংশ করে পতন লক্ষ করা যায়। তবে ব্যতিক্রম অবস্থানে থাকা হংকং স্টক এক্সচেঞ্জে দশমিক দুই শতাংশ ঊর্ধ্বগতি ছিল।

ইউরোপের শেয়ারবাজারেও ফেডের বৈঠকের প্রভাব পড়েছে। গতকাল বুধবার ব্রিটেনের এফটিএসই অপরিবর্তিত থাকলেও জার্মানির ডিএএক্স ও ফ্রান্সের সিএসিতে দশমিক এক শতাংশ পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন শুরু হয়।

এদিকে মুডি’স অ্যানালাইটিকসের প্রধান অর্থনীতিবিদ মার্ক জান্দি এএফপিকে জানিয়েছেন , ফেডের সুদ বৃদ্ধির সম্ভাবনা । কারণ মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে এবং বেকারত্বও কমছে।

তিনি আরও বলেন, ‘মুদ্রা নীতিমালা এখন স্বাভাবিক পর্যায়ে নিয়ে আসা প্রয়োজন। সামষ্টিক অর্থনীতিতে হারিকেন হার্ভের প্রভাবটি মূলত জ্বালানি বাজারে অনুভূত হতে পারে, যা শেষ পর্যন্ত মূল্যস্ফীতিতে প্রভাব ফেলবে।’

ফেডের নীতিনির্ধারণী বৈঠক সামনে রেখে কয়েক দিন ধরেই মার্কিন বন্ডের ইল্ড ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। অর্থনীতিতে অর্থ সরবরাহ ধীরে ধীরে কমিয়ে আনবে ফেডÑএমনটাই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন বন্ডে বিনিয়োগকারীরা ।

এই বিভাগের আরো খবর

আকাশপথে সরাসরি কার্গো পরিবহনে যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক: দুই বছর বাংলাদেশ থেকে আকাশপথে কার্গো পরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর তা প্রত্যাহার করে নিয়েছে যুক্তরাজ্য। রোববার...

হুমকির মুখে এসডিজি লক্ষমাত্রা অর্জন: মন্তব্য অর্থনীতিবিদদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্যাংক খাতে অস্থিরতা ও রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে নির্ধারিত সময়ে বাংলাদেশে এসডিজি লক্ষমাত্রা অর্জন হুমকির মুখে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is