ঢাকা, শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৪ ফাল্গুন ১৪২৫

2019-02-16

, ১০ জমাদিউল সানি ১৪৪০

তাসমিয়া শান্তা'র শেষ কবিতা : আত্মহত্যার আগে

প্রকাশিত: ০৭:৫৯ , ২০ মার্চ ২০১৭ আপডেট: ০৭:৫৯ , ২০ মার্চ ২০১৭

[পাবনার মেয়ে তাসমিয়া শান্তা, যার কবিতা পড়লেই বোঝা যায় সে আপাদমস্তক একজন কবি, কেন জানি "মরিবার হলো তার সাধ" ! গত ২ মার্চ গভীর রাতে কোনো এক সময়ে আত্মহত্যা করে সে। সে-রাতেই লেখা এই কবিতাটা, যার নিচে সময়-তারিখ দেয়া আছে 'মার্চ ২ অ্যাট ১১:০৫পিএম'।]

অস্বীকৃতি ·

এই অন্ধকারে লুটিয়ে পড়া বিষণ্ন রাতগুলোয়
তুমি নেই। কিছু ঘন গভীর দীর্ঘশ্বাস আছে কেবল।
সেও আমার একার।

ঈশ্বর বলেছে, কেউ কারো দীর্ঘশ্বাসের
শব্দ শুনতে পায় না।
তবু আমি ভাবতাম, তুমি বোধয় শুনতে পাও।
এত কাছে থেকেছো, বুকের এত গভীরে
তবু আমার এত দীর্ঘ, স্পষ্ট দীর্ঘশ্বাস শুনতে পাওনি, তা আমার বিশ্বাস হতো না।

আচ্ছা, তুমি কি আমাকে চিনতে পেরেছো ?
ওই যে, তোমার পাশে হাঁটতে হাঁটতে
বড় অচেনা এক নদীর সামনে এসে
যখন তুমি থেমে গেলে,
যখন তোমার অবয়বেে স্পষ্ট হলো
ক্লান্তি আর হতাশার ছাপ!
বড্ড দরকারেও যখন সেই বড় দীর্ঘ নদী পার হবার আর কোনও উপায় ছিল না তোমার,
তখন যে অবাধ্য কিশোরী
সাঁকোর রূপ ধারণ করলো, শরীর এলিয়ে--
সেই আমি !
তুমি তো কেবল দরকারে আমাকে মারিয়ে গেছো, চিনবে কি করে ?
কতবার বললাম, দাঁড়াও একটু, একসাথে হাঁটি।
তুমি শুনলে না তো !

কী, এখনো চিনতে পারোনি তো ?
তবে থাক, আর চিনতে এসো না ।
আমাকে চিনতে পারোনি,
এ তোমার সাতজন্মের ভাগ্য গো!
আমাকে চিনলে, তুমি আর বাঁচতে পারবে না ।
মরে যাবে...
মরে যাবে আমার ঘন গভীর দীর্ঘশ্বাসে ।
আরো মরে যাবে, আমাকে ভালবাসতে না পারার আক্ষেপে !

আমি নারী। আমি প্রেমিকা।
আমি উত্তাল নদীর বুকে অবহেলায় পড়ে থাকা সাঁকো!
আমাকে চিনতে এসো না
আমাকে একবার চিনলে আর উপেক্ষা করতে পারবে না। 

March 2 at 11:05pm
.

এই বিভাগের আরো খবর

পাঠক মুখর বই মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক: অমর একুশে গ্রন্থ মেলার ক্রেতা দর্শনার্ধীদের উপচেপড়া ভিড়। সরকারি ছুটির দিন না হলে স্বরস্বতী পুজা উপলক্ষে স্কুল কলেজ...

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের চার দশক, বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক: আলোকিত, উদার ও শক্তিমান নেতৃত্ব তৈরিতে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র সামনে থেকে কাজ করে চলছে। ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is