ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৮ কার্তিক ১৪২৪, ২ সফর ১৪৩৯
শিরোনামঃ
রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধান চায় বাংলাদেশ ও ভারত কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের তাগিদ বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া ১৪ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা শিশু অপুষ্টিতে মারা যেতে পারে নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি হোয়াইট ওয়াশ হলো বাংলাদেশ গত কদিনে বাংলাদেশে ঢুকেছে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা ১১ সাক্ষীকে জেরার জন্য খালেদার আবেদন হাই কোর্টে নিষ্পত্তি নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি নিরাপদ সড়ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে সবাই আইন মেনে চলুন আবহাওয়ার উন্নতি: দেশের বিভিন্ন রুটে নৌ চলাচল স্বাভাবিক নির্বাচন নিয়ে সরকার নীল নকশা করছে: রিজভী স্পেনের কেন্দ্রীয় শাসন না মানার ঘোষণা কাতালান প্রেসিডেন্টের উন্নত বাংলাদেশ গড়তে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখুন: জয় ইপিএল-এ জয় পেয়েছে চেলসি ও ম্যানসিটি বেড়িবাঁধ ভেঙে বিভিন্ন জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাহত ফেরি চলাচল টানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা টানা বৃষ্টিতে দেশের বিভিন্ন বন্দরের কার্যক্রমে স্থবিরতা মালয়েশিয়ায় ভূমিধসে তিন বাংলাদেশীসহ ৪ শ্রমিকের মৃত্যু কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে দিলো স্পেন

সাড়ে ৪ বছরে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে ২৫ হাজার কিশোর-কিশোরী পুনর্বাসিত

প্রকাশিত: ০৬:২২ , ১৫ মার্চ ২০১৭ আপডেট: ০৬:২২ , ১৫ মার্চ ২০১৭

গত সাড়ে চার দশকে দেশের তিনটি কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে সংশোধনের মাধ্যমে সমাজে পুনর্বাসিত হয়েছে ২৫ হাজারেরও বেশি কিশোর-কিশোরী। সংশ্লিষ্ট সূত্রে একথা জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট আইন অনুসরণ করে কিশোর-কিশোরীদের অপরাধের সাথে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ার পর শাস্তি না দিয়ে তাদের সংশোধন করার কাজটিই করে যাচ্ছে দেশের কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রগুলো। 

দেশের কিশোর-কিশোরীদের মাঝে অপরাধ প্রবণতা রোধে ১৯৭৮ সালে সর্বপ্রথম গাজীপুরের টঙ্গিতে সরকারিভাবে স্থাপন করা হয় কিশোর সংশোধনাগার। যা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। দেশের শিশু আইন অনুযায়ী অপরাধের বিচার না করে সংশোধনের মাধ্যমে কিশোর-কিশোরীদের বিশেষভাবে  পূর্নবাসনের কাজ করছে কিশোর কেন্দ্রগুলো।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত টঙ্গির প্রতিষ্ঠান থেকে পূর্নবাসিত হয়েছে বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত ১৭ হাজার ১৫৩ জন কিশোর। এই সংশোধনাগারের মতো  গাজীপুরের কোনাবাড়িতে কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে এক হাজার ৮৭২জন কিশোরী ও যশোরে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে ৬৫০০জন কিশোর সংশোধনের মাধ্যমে পূর্নবাসিত হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে।

কিশোর-কিশোরীদের অপরাধের সঙ্গে জড়িত হওয়ার প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায়, আরো সর্তকতার সাথে সংশোধনী প্রক্রিয়া গ্রহণ করা উচিত বলে মত দেন কিশোর-কিশোরীদের মন ও চিন্তার জগৎ নিয়ে গবেষণা করেন এমন চিকিৎসক। 

শুধু তাই নয়, এ সংশোধনী প্রক্রিয়ায় তাদের মানবাধিকার ও সামাজিক অধিকার রক্ষা হচ্ছে কিনা, তা নিশ্চিত করা উচিত বলে মনে করেন শিশু কিশোর অধিকার নিয়ে আন্দোলনরত কর্মীরা।

কিশোর-কিশোরীদের অপরাধের সঙ্গে জড়িত হয়ে পড়ার প্রবণতা কমিয়ে আনতে ঘরে বাইরে সচেতনতা তৈরীসহ শহর- গ্রামে সর্বস্তরে  সামজিক আন্দোলন গড়ে তোলার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করছেন সমাজ কর্মীরা।

 

এই সম্পর্কিত আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is