ঢাকা, বুধবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৮, ৪ মাঘ ১৪২৪, ২৯ রবিউস সানি ১৪৩৯
শিরোনামঃ
বরেণ্য সংগীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর  নেই রাজধানীর বাসাবাড়িতে তীব্র গ্যাস সংকট গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ : প্রণব আট ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সমাপ্ত হবে দুই বছরের মধ্যে মেয়র পদে তাবিথই ২০ দলীয় জোটের প্রার্থীঃ রিজভী খালেদা আগামী প্রধানমন্ত্রীঃ মওদুদ অনুপ্রবেশ নিয়ে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের কড়া হুঁশিয়ারি এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ কলম্বিয়ায় সেতু ধসে নিহত ৯ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় আইনি বাধা নেই বাল্যবিয়ে আজও দেশের বড় সামাজিক সমস্যা নিরোধ আইন করেও বন্ধ হয়নি বাল্যবিয়ের চর্চা ২০৩০ সালের মধ্যে বাল্যবিয়ে অর্ধেকে নামানোর ঘোষণা সরকারের শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের জন্য বাল্যবিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ চাঁদপুরে পিকআপ-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ৩ বিয়ের গসিপে বিরক্ত সোনাম কাপুর

সাড়ে ৪ বছরে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে ২৫ হাজার কিশোর-কিশোরী পুনর্বাসিত

প্রকাশিত: ০৬:২২ , ১৫ মার্চ ২০১৭ আপডেট: ০৬:২২ , ১৫ মার্চ ২০১৭

গত সাড়ে চার দশকে দেশের তিনটি কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে সংশোধনের মাধ্যমে সমাজে পুনর্বাসিত হয়েছে ২৫ হাজারেরও বেশি কিশোর-কিশোরী। সংশ্লিষ্ট সূত্রে একথা জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট আইন অনুসরণ করে কিশোর-কিশোরীদের অপরাধের সাথে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ার পর শাস্তি না দিয়ে তাদের সংশোধন করার কাজটিই করে যাচ্ছে দেশের কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রগুলো। 

দেশের কিশোর-কিশোরীদের মাঝে অপরাধ প্রবণতা রোধে ১৯৭৮ সালে সর্বপ্রথম গাজীপুরের টঙ্গিতে সরকারিভাবে স্থাপন করা হয় কিশোর সংশোধনাগার। যা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। দেশের শিশু আইন অনুযায়ী অপরাধের বিচার না করে সংশোধনের মাধ্যমে কিশোর-কিশোরীদের বিশেষভাবে  পূর্নবাসনের কাজ করছে কিশোর কেন্দ্রগুলো।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত টঙ্গির প্রতিষ্ঠান থেকে পূর্নবাসিত হয়েছে বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত ১৭ হাজার ১৫৩ জন কিশোর। এই সংশোধনাগারের মতো  গাজীপুরের কোনাবাড়িতে কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে এক হাজার ৮৭২জন কিশোরী ও যশোরে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে ৬৫০০জন কিশোর সংশোধনের মাধ্যমে পূর্নবাসিত হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে।

কিশোর-কিশোরীদের অপরাধের সঙ্গে জড়িত হওয়ার প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায়, আরো সর্তকতার সাথে সংশোধনী প্রক্রিয়া গ্রহণ করা উচিত বলে মত দেন কিশোর-কিশোরীদের মন ও চিন্তার জগৎ নিয়ে গবেষণা করেন এমন চিকিৎসক। 

শুধু তাই নয়, এ সংশোধনী প্রক্রিয়ায় তাদের মানবাধিকার ও সামাজিক অধিকার রক্ষা হচ্ছে কিনা, তা নিশ্চিত করা উচিত বলে মনে করেন শিশু কিশোর অধিকার নিয়ে আন্দোলনরত কর্মীরা।

কিশোর-কিশোরীদের অপরাধের সঙ্গে জড়িত হয়ে পড়ার প্রবণতা কমিয়ে আনতে ঘরে বাইরে সচেতনতা তৈরীসহ শহর- গ্রামে সর্বস্তরে  সামজিক আন্দোলন গড়ে তোলার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করছেন সমাজ কর্মীরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

নিরাপত্তার জন্য সংসদ ভবন পরিদর্শনের সুযোগ কম সাধারণ মানুষের

নিজস্ব প্রতিবেদক : দূর থেকে দেখে অভিভূত হওয়া ছাড়া জাতীয় সংসদ ভবনের ভেতরে গিয়ে দেখবার সুযোগ সাধারণের জন্য নেই বললেই চলে। অধিবেশন চলার সময়...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is