'‌পাকিস্তানের অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট'

প্রকাশিত: ১১:৩৩, ২৪ নভেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৩:৫১, ২৪ নভেম্বর ২০২১

কাজী বাপ্পা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর বছর ছিল ২০২০। তাঁর শততম জন্মবার্ষিকীর দিন, ১৭ই মার্চ থেকে শুরু হয়েছে মুজিববর্ষ উদযাপন, যা চলছে এই স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর বছরও। স্বাধীন বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু একাত্মা। তিনিই একাত্তরের ২৬শে মার্চ স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। তাঁর ডাকেই মানুষ স্বাধীনতার জন্য সশস্ত্র যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল। শেখ মুজিবুর রহমানের বিরল ঐতিহাসিক নেতৃত্বের সেই উত্তাল আন্দোলন ও সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলো নিয়ে মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর বছরজুড়ে বৈশাখী সংবাদের বিশেষ ধারাবাহিক আয়োজন- যাঁর ডাকে বাংলাদেশ।

পাকিস্তানে আকস্মিকভাবে জরুরী অবস্থা জারির পরদিন একাত্তর সালের ২৪শে নভেম্বর দখলদার পাকিস্তান সামরিক সরকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণা করা বাংলাদেশের ঢাকায় কারফিউ জারি করে। গেরিলা মুক্তিযোদ্ধাদের তৎপরতা বন্ধ করা ছিল কারফিউ জারির উদ্দেশ্য। এদিন রেডিও পাকিস্তান থেকে ঘোষণা করা হয়, কেউ গেরিলা মুক্তিযোদ্ধাদের সন্ধান দিতে পারলে তাকে পুরস্কৃত করবে পাকিস্তান সরকার।

অন্যদিকে, একাত্তরের ২৩শে নভেম্বর পাকিস্তানে জরুরী অবস্থা ঘোষণার পরদিন এর প্রেক্ষিতে নিজের সরকারের অবস্থান তুলে ধরেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী।
 
১৯৭১ সালের ২৪শে নভেম্বর ভারতের লোকসভায় দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা বলেন, “পাকিস্তান কেন জরুরী অবস্থা ঘোষণা করেছে তা আমাদের জানা নেই, তবে ভারতে জরুরী অবস্থা ঘোষণার মত তেমন কোন পরিস্থিতির উদ্ভব হয়নি। ভারতের সাথে পাকিস্তানের অঘোষিত যুদ্ধ প্রসঙ্গে পাকিস্তানের করা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।” (সূত্রঃ আনন্দবাজার পত্রিকা)

HIB/BDB

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *

loading...
loading...