গ্রাম থেকে ঢাকার হাসপাতালমুখী করোনা রোগীর চাপ

প্রকাশিত: ১০:১১, ২৯ জুলাই ২০২১

আপডেট: ০২:০৪, ২৯ জুলাই ২০২১

আশিক মাহমুদ: করোনায় আক্তান্ত হয়ে এখন যে সকল রোগী ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে তাদের বেশিরভাগই গ্রাম থেকে আসা। যাদের শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ এবং মৃত্যুর ঝুঁকিও বেশি। অনেক রোগীই ঢাকা আসার পর চিকিৎসা শুরুর আগেই মারা যাচ্ছেন। চিকিৎসকরা বলছেন, করোনার উপসর্গ থাকলেও গ্রামের মানুষ টেস্ট করেনা এমনকি চিকিৎসাও নিচ্ছেন না। 

করোনায় আক্তান্ত রীতা রানীকে নিয়ে বুধবার ভোরে রংপুর থেকে ঢাকায় রওনা হয় পরিবারের সদস্যরা। নানান উদ্বেগ উৎকণ্ঠা কাটিয়ে বেলা ১২টায় তাদের এ্যাম্বুলেন্সটি ঢাকা মেডিকেলে পৌঁছায়। পরিবারের সদস্যদের শত চেষ্টাও একটি আইসিইউ শয্যা মেলেনি তবে, একটি সাধারণ শয্যা মিলেছে। 

দেশের প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে যে সকল রোগী করোনার সব ধরণের উপসর্গ নিয়ে ঢাকায় আসছে তাদের বেশির ভাগই টেস্ট করায়নি। যার ফলে ঢাকার আসার পর করোনা টেস্ট করে চিকিৎসা শুরুর আগেই অনেক রোগীর প্রাণ যাচ্ছে। 

এমনই একজন কুমিল্লার সীমা খাতুন। বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে বুধবার ভোরে ঢাকায় এনে তাকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করে পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে চিকিৎসা শুরুর আগেই চিরতরে চোখ বন্ধ করেছেন তিনি। 

রাজধানীর কোভিড হাসপাতাল গুলোর একটিতেও আইসিইউ এমনকি সাধারণ শয্যাও খালি নেই। রোগীরা এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে ঘুরে ঘুরে আরো অসুস্থ হয়ে পড়ছেন।

ঢাকার হাসপাতালে এখন প্রত্যন্ত গ্রামের রোগীদের চাপ বেশি। করোনায় আক্রান্ত হয়ে বেশ কিছুদিন পর গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে তারা ঢাকায় আসছে বলে জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। 

করোনার নুত্যতম উপগর্স দেখা গেলে টেস্ট করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন  ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রি. জেনারেল নাজমুল হক।

AM/MSI

এই বিভাগের আরো খবর

ডেসটিনির অচলাবস্থা অবসানের পথ খুঁজছে সরকার

ফাহিম মোনায়েম: ডেসটিনি গ্রুপের সম্পদ...

বিস্তারিত
ক্যাসিনোকাণ্ড ক্লাবগুলোতে এখনো তালা

ক্রীড়া ডেস্ক: ক্যাসিনো কেলেংকারির...

বিস্তারিত
সরকারকে চাপে রাখার কৌশল বিএনপি'র

নিজস্ব প্রতিবেদক: নির্দলীয় ও...

বিস্তারিত
রাজধানীতে আবারো বেড়েছে বায়ু দূষণ

ফাহিম মোনায়েম: রাজধানীতে আবারো বাড়ছে...

বিস্তারিত
উড়োজাহাজের শহর!

অনলাইন ডেস্ক: শহরের নাম ক্যামেরন...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *