চিরকালীন অচলায়তন ভাঙলো বৈশাখী টেলিভিশন

প্রকাশিত: ১০:০০, ০৭ মার্চ ২০২১

আপডেট: ০৫:৫৮, ০৭ মার্চ ২০২১

বিউটি সমাদ্দার: দেশের জন্য ইতিহাস গড়া এক ঘটনা ঘটিয়েছে ‘বৈশাখী টেলিভিশন’। চরম অবহেলিত কিন্তু প্রতিভাবান দুজন ট্রান্সজেন্ডার নারীকে পেশাদার সংবাদ পাঠ ও একটি জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাটকের মূল চরিত্রে যুক্ত করেছে দেশের জনপ্রিয় বেসরকারি এই স্যাটেলাইট চ্যানেলটি। আগামীকাল (সোমবার, ৮ই মার্চ) আন্তর্জাতিক নারী দিবসে এই দুজন ট্রান্সজেন্ডার নারী বৈশাখীর পর্দায় আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের জনগোষ্ঠীর জন্য মর্যাদাকর কিন্তু নজিরবিহীন এ কাজে যাত্রা শুরু করবেন।

তাদের দুজনের কেউই নিজেদের পরিবারে টিকতে পারেনি, কারণ তারা জন্মগতভাবে নারীও নন, পুরুষও নন, ট্রান্সজেন্ডার। অবশ্য শিশির নিজেকে পরিচয় দেন ট্রান্সজেন্ডার নারী হিসেবে, আর মৌ এর মতে, তিনি তৃতীয় লিঙ্গের নারী।

শিশির কলেজে পা রাখা পর্যন্ত পরিবারে টিকলেও মৌকে তৃতীয় শ্রেনীতে স্কুল ও বাড়ি ছাড়তে হয়েছে। মৌ নিজের সাথে জেদ করে পড়া-লেখা করেছেন, নিয়েছেন স্মাতকোত্তর ডিগ্রি, করেছেন চাকরী। সেই সাহস ও সুযোগের কোনটাই মৌয়ের সৌভাগ্যে জুটেনি।

তাসনুভা আনান শিশির ও নুসরাত জাহান মৌ প্রায় সমবয়সী, ৩০ ছুঁই ছুঁই। ঘরে ও বাইরে অবর্ণনীয় দুঃখ-কষ্ট, নিপীড়ন, গঞ্জনা, অপমান সইতে হয়েছে তাদের। তবু স্বপ্ন দেখেছেন কোন একসময় জীবনের মোড় ঘুরে সুন্দর কিছু জুটবে।

‘‘বাড়ি ফেরাটা মনে হয় হবে। আমি জানি না আসলে এখনো ভাবতে পারছি না যে, আসলে কতটা ফেস করতে পারব বা কতটুকু মানুষ পজেটিভলি নিবেন’’– তানসুভা আনান শিশির।

‘‘সবাইতো চায় নিজের পায়ে দাঁড়াতে, নিজে কিছু করতে, সমাজে প্রতিষ্ঠিত হতে’’– নূসরাত জাহান মৌ।

শিশির ছোটবেলা থেকে নাচ ও থিয়েটারের সাথে যুক্ত ছিলেন। মৌয়েরও অভিনয় করার প্রতি ভীষণ আগ্রহ ছিলো। শুধু ছিলনা স্বপ্ন পূরণের কোন সম্ভাবনা। কেবল কষ্টগুলো বড় হয়ে ছিল জীবনে। কিন্তু দুজনই সম্প্রতি হঠাৎ বৈশাখী টেলিভিশন পরিবারে ডাক পান। শিশির পেশাদার সংবাদ বুলেটিন পাঠ করার জন্য, আর মৌ জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাটক চাপাবাজ-এর একটি প্রধান নারী চরিত্রে অভিনয়ের জন্য।

শিশির ও মৌ দুজনই জীবনের এই অর্জনকে দেশের ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে আনার জন্য ঐতিহাসিক মাইলফলক পদক্ষেপ হিসেবে দেখেন। আর বৈশাখীর উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম মিলন মনে করেন, এটা তাদের সামাজিক দায়িত্ব, যাত্রা শুরুর ইতিহাসটা গড়ে দিয়েছে বৈশাখী।

‘‘লিঙ্গ পরিচয় আমাদের কাছে বড় জিনিস নয়। আমরা দু’জন ট্রান্সজেন্ডার পেয়েছি। তারমধ্যে তাদের প্রতিভা ও যোগ্যতা আছে। তাদেরকে আমরা সংবাদ ও বিনোদনে সংযুক্ত করেছি। এইটা ২০২১ সাল, মূলত একটা ঐতিহাসিক বছর। যেখানে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ৫০ বছর সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আমাদের প্রধানমন্ত্রী ট্রান্সজেন্ডার যারা আছেন তাদেরকে বাসা বানিয়ে, বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দিয়ে সহযোগিতা করছে। আমরা বৈশাখী টেলিভিশন তাদের দু’জনকে চয়েজ করেছি, আমাদের নাটক এবং সংবাদ পাঠে’’টিপু আলম মিলন, উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক, বৈশাখী টেলিভিশন।

শিশির ও মৌ যেমন উচ্ছ্বসিত, তেমনি বৈশাখী পরিবারও দু’জন ট্রান্সজেন্ডার নারীকে মূলধারায় যুক্ত করতে পেরে গর্বিত।

‘‘এখনো দুই-তিনজনের মতো পাইপলাইনে আছে। আগামীতে যাদের প্রতিভা আছে, যোগ্যতা আছে তাদেরকেও আমরা আমাদের প্রতিষ্ঠানে (বৈশাখী টেলিভিশন) সংযুক্ত করার ইচ্ছা আছে‘’ -টিপু আলম মিলন, উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক, বৈশাখী টেলিভিশন।

‘‘অভিনয় করার ইচ্ছা ছিলো, কিন্তু এই ভাবে সুযোগ পাব এইটা ভাবিনি যে, একটা নাটকের, একটা গল্পের মেইন রুল হিসেবে আমি থাকব এইটা কখনো ভাবিনি’’- নূসরাত জাহান মৌ।

‘‘আমাদের সমাজের মানুষের যে হাজার বছরের প্রথা, হাজার বছরের যে নারী-পুরুষের মাথার মধ্যে ভাবনার যে পুরানো চিন্তা। আমার মনে হয়, একটা কুড়ালের মতো কোপ মারল’’- তানসুভা আনান শিশির।

শিশির আগামীকাল (সোমবার) নারী দিবসে প্রথম দুপুর ১২টা এবং পরে বিকেল ৪টার সংবাদ বুলেটিন পাঠ করবেন। আর বৈশাখী টেলিভিশনে মৌ এর প্রথম অভিনয় দেখা যাবে আগামীকাল (সোমবার) রাত ৯টা ২০ মিনিটে ধারাবাহিক নাটক ‘চাপাবাজে’। যা প্রতি সপ্তাহে তিনদিন (শনি ও রবি ও সোমবার) প্রচারিত হবে একই সময়ে

এই বিভাগের আরো খবর

টিআরপি নিরুপণে সরকারের অনুমোদন লাগবে

নিজস্ব প্রতিবেদক: টেলিভিশন রেটিং...

বিস্তারিত
জনকণ্ঠ সম্পাদকের মৃত্যুতে নোয়াবের শোক

নিজস্ব প্রতিবেদক : বীর মুক্তিযোদ্ধা ও...

বিস্তারিত
পোল্ট্রি মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড পেলেন ১৯ সাংবাদিক

নিজস্ব প্রতিবেদক: পোল্ট্রি খাত নিয়ে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *