ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-21

, ১০ মহাররম ১৪৪০

এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে ঘুষ দেওয়ায় ভারত প্রথম

প্রকাশিত: ১০:১৮ , ১১ মার্চ ২০১৭ আপডেট: ১০:১৮ , ১১ মার্চ ২০১৭

সরকারি সেবা পেতে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি ঘুষ দিতে হয় ভারতে। ঘুষ  দেওয়ার এই র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষ স্থান দখল করা ভারতে প্রতি ১০ জনের মধ্যে ঘুষ দিতে হয় ৭ জনকে। এরপর ক্রমান্বয়ে রয়েছে ভিয়েতনাম, চীন আর পাকিস্তান। নানা ধরনের প্রশাসনিক সেবা পেতে এই ঘুষ দিয়ে থাকেন দেশটির নাগরিকেরা বলে জানিয়েছে দুর্নীতি-বিষয়ক আন্তর্জাতিক নজরদারি সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল টিআই। সংস্থাটি আরো জানায়, এশিয়ায় প্রতি ৪ জনে ১ জন ঘুষ দিতে বাধ্য হয়।  

দুর্নীতি-বিষয়ক আন্তর্জাতিক নজরদারি সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল টিআই সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সরকারি সেবা পেতে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি ঘুষ দিতে হয় ভারতে। ঘুষ  দেওয়ার এই র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষ স্থান দখল করা ভারতে প্রতি ১০ জনের মধ্যে ঘুষ দিতে হয় ৭ জনকে। এরপর ক্রমান্বয়ে রয়েছে ভিয়েতনাম, চীন আর পাকিস্তান।

টিআই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, এশিয়ায় প্রতি ৪ জনে ১ জন ঘুষ দিতে বাধ্য হয়। জরিপে অংশ নেওয়া ৬৯ শতাংশ ভারতীয় জানিয়েছে, তাদেরকে সরকারি সেবা পেতে ঘুষ দিতে হয়। এরপরে আছে ভিয়েতনাম। দেশটির ৬৫ শতাংশ মানুষকে এ ধরনের কাজ করতে বাধ্য করা হয়। চীনের এই হার ২৬ শতাংশ আর পাকিস্তানে ৪০ শতাংশ। জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশে এই হার ১০ শতাংশের নিচে।

এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ১৬টি দেশে ২০ হাজার মানুষের কাছ থেকে তথ্য-উপাত্ত নিয়ে এ জরিপ চালানো হয়েছে। জরিপের ফলাফল থেকে টিআই দাবি করে, গত এক বছরে এশিয়ায় ৯০ কোটি মানুষকে জোরপূর্বক ঘুষ দিতে বাধ্য করা হয়েছে। এর মধ্য পুলিশ বিভাগেই ঘুষ বাণিজ্য হয়েছে বেশি।

২০১৫ সালের জুলাই থেকে ২০১৭ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত এই গবেষণা করে সংস্থাটি জানিয়েছে, ঘুষ দুর্নীতি এ অঞ্চলে দারিদ্র্য হার হ্রাসের পথে বাধা সৃষ্টি করছে। এবং তা সরকারি সেবাকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। এ অঞ্চলের দেশগুলোর সরকারকে তাই এখন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

নতুন ন্যূনতম মজুরি অন্যায্য : বিশ্লেষক ও শ্রমিক প্রতিক্রিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক: তৈরী পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি প্রায় ৫১ শতাংশ বাড়ানো হলেও একে জীবনযাত্রার ব্যয় বৃদ্ধির তুলনায় অপ্রতুল বলে মনে করছেন...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is