আগামী নির্বাচনে জয়ের ছক কষছে রাজনৈতিক দলগুলো আপডেট: ০৩:১৬, ১৭ জুলাই ২০১৭

রাজনৈতিক প্রতিবেদক: আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ের ছক কষছে রাজনৈতিক দলগুলো। দশম সংসদ বর্জন করা বিএনপি এবার নির্বাচনে যাবে বলে ধরে নিয়েই দলীয় কৌশল ঠিক করছে আওয়ামী লীগ।

জামায়াতের নিবন্ধন না থাকায়, তারা ভর করবে বিএনপি'র প্রতীকে। এক প্রতীকে দুই প্রতিদ্বন্দ্বীকেই মোকাবেলা করতে হবে ক্ষমতাসীনদের। তবে জাতীয় নির্বাচনের আগে ৬টি সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পরই সংসদ নির্বাচনের চূড়ান্ত কৌশল ঠিক করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকরা।

রাজনৈতিক দলগুলো অনেকটাই নির্বাচনমুখী। মাঠে-ময়দানে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ আগে থেকেই একধরনের নির্বাচনী প্রচারণার মধ্যেই ছিল। দলের সভানেত্রী বিভিন্ন জেলায় সরকারি কর্মসূচির সময় দলীয় জনসভায় যোগ দিয়েরনৌকা মার্কায় ভোট চাইছেন। নির্বাচন কমিশন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রোডম্যাপ ঘোষণার পর তারা নির্বাচনী লড়াইয়ে কৌশল তৈরিতে ব্যস্ত।

দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করা বিএনপি এবার নির্বাচনে আসবে ধরে নিয়েই নির্বাচনী কৌশল আঁটছে ক্ষমতাসীনরা। আগামী বছর ডিসেম্বর থেকে ২০১৯-এর ফেব্রুয়ারির মধ্যে একাদশ সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা। তবে তার আগে এ বছরের শেষদিকে বা ২০১৮’র প্রথম দুমাসের মধ্যে দেশের ৬টি সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে। সে-নির্বাচনকে সংসদ নির্বাচনের ওয়ার্ম-আপ মনে করছে আওয়ামী লীগ।

দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ডক্টর আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছেন, বিএনপিকে শক্ত প্রতিপক্ষ বিবেচনায় নিয়েই মাঠে নামবে আওয়ামী লীগ। তাদের অতীত কর্মকাণ্ড মানুষের কাছে তুলে ধরাই হবে তাদের অন্যতম নির্বাচনী কৌশল। 

নিবন্ধন হারানো জামায়াত নির্বাচনে বিএনপির প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করলে তা কীভাবে মোকাবেলা করবে আওয়ামী লীগ-- এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, এটা বড় কোনো চ্যালেঞ্জ নয়।

সরকারের দু মেয়াদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ও বিএনপি'র নিকট-অতীতের জ্বালাও-পোড়াও কর্মকাণ্ডই আওয়ামী লীগের আগামী নির্বাচনের অন্যতম প্রচার কৌশল বলে জানিয়েছেন দলটির নেতারা।