নারীকল্যাণে কাজ করে 'হি অর শী' সম্মাননা স্মারক পেলেন বাপ্পি আপডেট: ০৪:১৬, ০৮ মার্চ ২০১৭

নিজে নারী নন, তবু নির্যাতিত আর অসহায় কন্যাশিশুদের জন্যই তাঁর নিরন্তর পথ চলা। আর এ জন্য স্বীকৃতি হিসেবে এ বছর আর্ন্তজাতিক নারী মানবাধিকার সংস্থা ২০ বছর বয়সী এই তরুণকে দিয়েছে 'হি অর শী' সম্মাননা স্মারক।

নারী নির্যাতন প্রতিরোধে তিনি বিশেষ ভুমিকা রেখে চলেছেন। এ নিবেদিতপ্রাণ তরুণটি হলেন কুষ্টিয়ার মোহাম্মদ বাপ্পি।

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার নিভৃ্ত পল্লী নোয়াপাড়ার বাসিন্দা মোহাম্মদ বাপ্পি। নিজের মায়ের ওপর অমানুষিক নির্যাতন দেখতে দেখতেই আজ তিনি নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের প্রতীক।

নারী নির্যাতন বন্ধ ও মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে ২০০৭ সালে চার বন্ধু মিলে প্রতিষ্ঠা করেন গড়াই ষ্টুডেন্টস ফোরাম। ৪০০ সদস্য সংখ্যা নিয়ে যার কার্যক্রম এখন জেলাব্যাপী।

তাদের উদ্যোগে বিভিন্ন স্কুলের মেয়েদের সাইক্লিং করে স্কুলে আসতে শিখেছে, আত্মরক্ষায় নিয়েছে কারাতের প্রশিক্ষণ।

স্টুডেন্টস ফোরাম নির্যাতিত ও স্বামীপরিত্যক্ত মেয়েদের স্বাবলম্বী করতে, এবং দরিদ্র, প্রতিবন্ধী ও গৃহহীন শিশুদের নানাভাবে সহায়তা করে আসছে।

সংগঠনটি এলাকায় প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে। তাদের এমন উদ্যোগকে এগিয়ে নিতে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন মিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুল আরেফিন।

উদ্যমী তরুণ বাপ্পি'র স্বপ্ন পথশিশুদের জন্য স্কুল প্রতিষ্ঠা, মাদকমুক্ত যুব সমাজ, দারিদ্র্যপীড়িত মানুষের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা, আর নির্যাতিত নারীদের স্বাবলম্বী করতে কারিগরি শিক্ষার ব্যবস্থা করা।

নারী নির্যাতন প্রতিরোধে বিশেষ ভুমিকা রাখার স্বীকৃতি হিসেবেই নারী মানবাধিকার সংস্থা বাপ্পিকে দিয়েছে 'হি অর শী' সম্মাননা স্মারক।

সমাজের নানা অনিয়ম আর প্রতিবন্ধকতা জয় করতে তরুণ সমাজের জন্য অনুকরণীয় রোল মডেল কুষ্টিয়ার এই উদ্যমী তরুণ।