যুক্তরাষ্ট্রে এক মাসে ১৮ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান 

প্রকাশিত: ০১:৪০, ১০ আগস্ট ২০২০

আপডেট: ০১:৪০, ১০ আগস্ট ২০২০

আফিয়া জ্যোতি: যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির পরেও জুলাই মাসে ১৮ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। এতে জুলাই মাসে দেশটির বেকারত্বের হার পুরো এক শতাংশ কমে ১০ দশমিক ২ শতাংশে নেমে এসেছে। যা আপাত দৃষ্টিতে সুসংবাদ বলে মনে হতে পারে। তবে একটু গভীরভাবে দেখলে বিষয়টি ততটা সুখকর নয়। 

দেশটির শ্রমবিভাগের ইউ-সিক্স এর হিসেব অনুযায়ী, যারা কাজের অনুসন্ধান করে কাজ না পেয়ে নিরুৎসাহিত এবং যারা ফুল টাইম চাকরি না পেয়ে পার্ট-টাইম চাকরিতে আছেন তাদের সংখ্যা ১৬ দশমিক ৫ শতাংশ। যা এপ্রিল মাসে ছিলো ২২ দশমিক ৮ শতাংশ। এপ্রিলের তুলনায় হারটি কমে আসলেও ইউ-সিক্স এর বর্তমান পয়েন্ট থেকে এটা অনুমান করা যায় যে, যারা কাজের বাইরে আছে তাদের জন্য চাকরি খুঁজে পাওয়া কতটা কঠিন হবে।

গত মাসে ১৮ লাখ কর্মসংস্থানের সুযোগ হলেও শ্রমবিভাগের তথ্য অনুযায়ী প্রায় ১২ লাখ শ্রমিক রাষ্ট্রীয় বেকারত্ব সুবিধার জন্য প্রাথমিকভাবে আবেদন করেছেন। মরগান স্ট্যানলির অর্থনৈতিক দল মন্তব্য করেছেন যে, যুক্তরাষ্ট্রের শ্রমবাজার এখন দোদুল্যমান অবস্থায় রয়েছে। সহজ ভাষায় বলতে গেলে, লক্ষ লক্ষ কর্মীকে চাকরি দেয়া হচ্ছে তাদের চাকরিচ্যুত করার জন্য অথবা চাকরি স্থায়ী হওয়ার আগেই তাদের ছাঁটাই করা হচ্ছে। 

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন জায়গায় করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়ায় দেশটিতে নতুন নতুন বিধি-নিষেধের কারণে বেশকিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গিয়েছিলো। কিন্তু জুন মাসে অনেক প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ায় প্রায় ৪৮ লক্ষ মানুষ পুনরায় কাজে যোগ দেয়। তবে আস্তে আস্তে অর্থনৈতিক কার্যকলাপের গতি আবারও কমে যেতে শুরু করে দ্বিতীয়দফা করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায়। 

ব্যাংক অফ আমেরিকার মার্কিন অর্থনীতি বিভাগের প্রধান মিশেল মেয়ার বলেছেন, শ্রমবাজারের উন্নতি হচ্ছে যা আশানুরূপ একটি বিষয়। তবে সামনে আরো কঠিন পথ অতিক্রম করতে হতে পারে। তিনি উলে­খ করেছিলেন যে মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত ৪২ শতাংশ মানুষ কাজ হারিয়েছে। এটি পূরণ করা বেশ কঠিন হবে। 

এই মুহুর্তে ক্ষতিপূরণের জন্য কর্মীদের কাজে ফিরিয়ে আনা প্রয়োজন। প্রাথমিক পর্যায়ে খুব সহজে কাজের সুযোগ তৈরী করে কর্মীদের দ্রুত ফিরিয়ে আনতে হবে। যদিও এটি কোভিড-১৯ এর আগের পর্যায়ে ফিরে আনা এখনই সম্ভব নয়। 

শ্রমবাজারের প্রতিবেদনে জানা যায়, গত মাসে বেকার ভাতা ৬০০ ডলার করে দেয়া হয়েছিলো। এতে বিভিন্ন স্বচ্ছল পরিবারও ভাতা নেয়ার জন্য ভিড় করে। তবে এই ভাতা সংক্রান্ত বিষয়টি নিয়ে ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকানদের মধ্যে দ্বি-মত দেখা দিয়েছিলো।
 

এই বিভাগের আরো খবর

ইউরোপে আবারো বাড়ছে করোনার প্রকোপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের...

বিস্তারিত
করোনার টিকা তৈরিতে হাঙ্গরের যকৃত ব্যবহার!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বিশ্ব মহামারি...

বিস্তারিত
বিশ্বে করোনায় সুস্থ ২ কোটি ৪৮ লাখের বেশি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বৈশ্বিক মহামারি...

বিস্তারিত
ভারতে করোনায় আক্রান্ত ৬০ লাখ ছাড়ালো

অনলাইন ডেস্ক: বৈশ্বিক মহামারি...

বিস্তারিত
বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ১০ লাখ ছাড়ালো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: প্রাণঘাতী ভাইরাস...

বিস্তারিত
ঘানায় করোনা সংক্রমণ কমছে

অনলাইন ডেস্ক: বৈশ্বিক মহামারি...

বিস্তারিত
বিশ্বে করোনায় মৃত্যু প্রায় ১০ লাখ 

অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া...

বিস্তারিত
মিশরে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে

অনলাইন ডেস্ক: বৈশ্বিক মহামারি...

বিস্তারিত
বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ১০ লাখ ছুঁই ছুঁই

অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *