লঞ্চ দুর্ঘটনার কারণ না জানিয়েই তদন্ত প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ০৩:১৮, ০৭ জুলাই ২০২০

আপডেট: ০৩:১৮, ০৭ জুলাই ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: কারণ না জানিয়েই বুড়িগঙ্গায় সাম্প্রতিক লঞ্চ ডুবির ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলো। আজ মঙ্গলবার (০৭ জুলাই) দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী। মন্ত্রণালয়ের বেঁধে দেওয়া সাতদিনের সময় শেষে সোমবার (০৬ জুলাই) রাতে এই প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়।

এ সময় নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, মামলার তদন্তের স্বার্থে দুর্ঘটনার কারণ জানানো যাচ্ছে না। এ সময় ফিটনেসবিহীন লঞ্চ বন্ধসহ প্রতিবেদনে উল্লেখিত ২০ দফা সুপারিশমালা তুলে ধরেন তিনি। 

তিনি বলেন, প্রতিবেদনের মধ্য দিয়ে বিচার কাজ শুরু হবে। মূল তদন্ত যেটা হচ্ছে আইনি প্রক্রিয়ার জন্য সেই তদন্তটা যেন কোনোভাবে বিঘ্নিত না হয় সেজন্য এটা জনসমক্ষে প্রকাশ করছি না। আমরা একটা শৃঙ্খলার মধ্যে আনার চেষ্টা করছি। 

তিনি আরো বলেন, ভিডিও ফুটেজ অনুযায়ী নৌ দুর্ঘটনাটি এখনো হত্যাকান্ড বলেই মনে হয়। তবে ঘাতক লঞ্চটির ফিটনেসে ঘাটতি নেই। পুলিশী তদন্তে এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড প্রমাণিত হলে, ৩০২ ধারায় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

ফিটনেসবিহীন লঞ্চ চলাচল বন্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেও আশ্বাস দেন তিনি।

গত ২৯ জুন লঞ্চ দুর্ঘটনার দিনই সাত সদস্যের উচ্চপর্যায়ের ওই তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। তদন্ত কমিটিতে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব (উন্নয়ন) রফিকুল ইসলাম খানকে আহ্বায়ক এবং বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিএ) পরিচালক (নৌ-নিরাপত্তা) রফিকুল ইসলামকে সদস্য সচিব করা হয়।

কমিটিকে সাতদিনের মধ্যে দুর্ঘটনার কারণ উদ্ঘাটন, দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তি/সংস্থাকে শনাক্তকরণ এবং দুর্ঘটনা প্রতিরোধে করণীয় উল্লেখ করে সুনির্দিষ্ট সুপারিশ সংবলিত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছিল। 

ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় ময়ূর-২ এর মাস্টার, চালক ও সুকানিসহ অন্যদের দায়িত্বে অবহেলাকেই মূলত দায়ী বলে মনে করা হয়। এছাড়া ডুবে যাওয়া ভাঙাচোরা ছোট আকারের লঞ্চ মর্নিং বার্ডের চলাচলে অনুমোদনের বিষয়টি নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। এই অনুমোদনের জন্য বিআইডব্লিউটিএ’র সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তাদের গাফিলতিকেও দায়ী করা হয়েছে।
 
গত ২৯ জুন সকালে ঢাকা-চাঁদপুর রুটের ময়ূর-২ নামের একটি লঞ্চের ধাক্কায় ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ রুটের মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়। পরে ৩৪ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়।

এই বিভাগের আরো খবর

করোনাকালেও জুলাইয়ে রেমিট্যান্সের রেকর্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসের...

বিস্তারিত
সিন্ডিকেটের কবলে পড়ে বিপর্যস্ত চামড়ার বাজার

তাসলিমুল আলম: সিন্ডিকেটের কবলে পড়ে...

বিস্তারিত
চামড়া শিল্পকে ধ্বংস করে দিয়েছে সরকার: রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা এবং বন্যায়...

বিস্তারিত
গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩০, শনাক্ত ১৩৫৬

নিজস্ব প্রতিবেদক:  প্রাণঘাতী...

বিস্তারিত
করোনায় দেশে জুলাইয়ে বেড়েছে প্রাণহানি

তারেক সিকদার: করোনা আক্রান্ত হয়ে দেশে...

বিস্তারিত
ঢাকায় ফিরছে মানুষ, খুলেছে অফিস

অনলাইন ডেস্ক: প্রিয়জনের সাথে ঈদ...

বিস্তারিত
নির্মাতা তারেক মাসুদের ঘাতক বাসচালকের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক: চলচিত্র নির্মাতা তারেক...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *