ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস আজ

প্রকাশিত: ১০:০৩, ০৭ জুন ২০২০

আপডেট: ০১:১৫, ০৭ জুন ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাঙালীর মুক্তির সনদ ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস আজ। দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে ৭ জুন এক অবিস্মরণীয় ও তাৎপর্যপূর্ণ দিন।

১৯৬৬ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে স্বায়ত্ত্বশাসন প্রতিষ্ঠার দাবিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে আন্দোলন শুরু করে বাংলার আপামর জনতা। এতে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হয় সামরিক শাসক ইয়াহিয়া খান। 

১৯৬৬ সালের এই দিনে শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ ৬ দফা আদায়ের লক্ষ্যে আওয়ামী লীগের ডাকে হরতাল চলাকালে নিরস্ত্র জনতার ওপর পুলিশ ও তৎকালীন ইপিআর গুলিবর্ষণ করে। এতে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে মনু মিয়া, সফিক ও শামসুল হকসহ ১১ জন শহীদ হন। শহীদের রক্তে ৬ দফা আন্দোলন স্ফুলিঙ্গের মতো দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। রাজপথে নেমে আসে বাংলার মুক্তিকামী জনগণ।

৬ দফা দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।   দিবসটি উপলক্ষে প্রতিবার আওয়ামী লীগ নানা কর্মসূচি পালন করলেও এবার করোনাভাইরাসের কারণে কোনো কর্মসূচি ঘোষণা করেনি।

পাকিস্তানি শাসন-শোষণ-বঞ্চনা থেকে মুক্তির লক্ষ্যে স্বৈরাচার আইয়ুব সরকারের বিরুদ্ধে ১৯৬৬ সালের ৫ ফেব্র“য়ারি লাহোরে তৎকালীন পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের সব বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে ডাকা এক জাতীয় সম্মেলনে পূর্ব বাংলার জনগণের পক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৬ দফা দাবি উত্থাপন করেন। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১১ ফেব্র“য়ারি ঢাকায় ফিরে ৬ দফার পক্ষে দেশব্যাপী প্রচারাভিযান শুরু  করেন এবং বাংলার আনাচে-কানাচে সব অঞ্চলে গিয়ে জনগণের সামনে ৬ দফার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন। বাংলার সর্বস্তরের জনগণ এই ৬-দফা সম্পর্কে সম্যক ধারণা অর্জন করে এবং ৬ দফার প্রতি স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থন জানায়। ৬ দফা বাঙালির মুক্তির সনদ হিসেবে বিবেচিত হয়। ৬ দফা হয়ে ওঠে পূর্ব বাংলার শোষিত-বঞ্চিত মানুষের মুক্তির সনদ। 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত ৬ দফা আন্দোলন ১৯৬৬ সালের ৭ জুন নতুন মাত্রা পায়। বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৬ দফার প্রতি বাঙালির অকুণ্ঠ সমর্থনে রচিত হয় স্বাধীনতার রূপরেখা। ৬ দফা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে অঙ্কুরিত হয় স্বাধীনতার স্বপ্নবীজ। ৬ দফা ভিত্তিক আন্দোলন-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন স্বাধীনতা সংগ্রামে রূপ নেয়।

দেশ স্বাধীনের পর থেকে প্রতিবছর ৭ই জুনকে ৬ দফা দিবস হিসেবে পালন করে আসছে বাংলাদেশ। মুজিববর্ষ উদযাপনের অংশ হিসেবে এবছর ৬ দফা দিবস বড় আয়োজনে পালন করার কথা থাকলেও, চলমান করোনা মহামারির কারণে অনুষ্ঠানে আনা হয়েছে ভিন্নতা। আগেই ধারণ করা আলোচনা অনুষ্ঠান দেশের সম্প্রচার ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত হবে। এতে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া বঙ্গবন্ধুকে জানতে রাখা হয়েছে বিশেষ কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজনও। 
 

এই বিভাগের আরো খবর

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি বিএনপির

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বাস্থ্যখাতের...

বিস্তারিত
কলাবাগানে নারীর মরদেহ উদ্ধার, একজন আটক

নিজস্ব সংবাদদাতা: রাজধানীর কলাবাগান...

বিস্তারিত
৪৫ টাকার নীচে মিলছে না চাল

সুমন তানভীর: সর্বনিম্ন ৪৫ টাকা কেজির...

বিস্তারিত
একদিনে মৃত্যু আরো ৩৭, শনাক্ত ২৯৪৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: গত ২৪ ঘন্টায় দেশে...

বিস্তারিত
নবরূপে সেজেছে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসগুলো

বিউটি সমাদ্দার: সারাক্ষণ সরগরম থাকতো...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *